ফের নতুন করে বোমাবাজিতে উত্তপ্ত ভাটপাড়া, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি চালাল পুলিশ

0
124

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বোমাবাজির ঘটনায় ফের উত্তেজনা ছড়াল কাঁকিনাড়া-ভাটপাড়া এলাকায়। দুই দুষ্কৃতী দলের মধ্যে বোমাবাজির ঘটনায় তেতে উঠল এলাকা৷ প্রতিবাদে সোমবার সকাল থেকে কাঁকিনাড়ায় রেল অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা। বন্ধ হয়ে যায় শিয়ালদা মেন লাইনের ট্রেন চলাচল। বিভিন্ন স্টেশনে দাঁড়িয়ে পড়ে একাধিক ট্রেন৷ ভোগান্তির শিকার হন নিত্যযাত্রীরা৷ এলাকায় শান্তি ফেরাতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ দাবি করেন এলাকাবাসী৷ ঘোষপাড়া রোডে বোমাবাজি শুরু হয়৷ এরপরেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি চালায় পুলিশ৷ বন্ধ হয়ে যায় দোকানপাট, স্কুলগুলিও বন্ধ করে দেওয়া হয়৷

নির্বাচনের সময় থেকে চলে আসা রাজনৈতিক সন্ত্রাসে এখনও উত্তপ্ত ভাটপাড়া৷ বোমাবাজি, গোলাগুলি যেন নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে এই এলাকায়৷ জুন মাসেই ভাটপাড়া থানার উদ্বোধন ঘিরে পুলিশের গুলিতে দুই দুষ্কৃতীর মৃত্যু হয় বলে দাবি করে বিজেপি৷ থানা উদ্বোধনের আগেই পুলিশের ওপর ঘটে গেল দুষ্কৃতী হামলার ঘটনা। সেই আক্রমণের মুখে পড়ে পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে এক দুষ্কৃতী প্রাণ হারায়। জখম হন চার জন৷ পরে সেই চারজনের মধ্যে আরও একজনের মৃত্যু হয়৷ এখানেই থামেনি অশান্তি, তারপরেই বেশ কয়েকবার বোমাবাজির ঘটনায় অশান্ত হয়ে উঠেছে অর্জুনগড়৷ রবিবার আবারও নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভাটপাড়া ও কাঁকিনাড়া।

এদিন রাত সাড়ে আটটা নাগাদ ভাটপাড়া থানার অদূরে কাকিনাড়া ৫ ও ৬ নম্বর রেলওয়ে সাইডিংয়ে মুড়ি মুড়কির মতো বোমা পড়তে শুরু করে। আতঙ্কে সাধারণ মানুষ ছোটাছুটি শুরু করে দেন। ব্যস্ততম ঘোষপাড়া রোডের ওপর পড়তে থাকে একের পর এক বোমা। তড়িঘড়ি দোকান বন্ধ করে দেন ব্যবসায়ীরা। স্থানীয়দের থেকে জানা গিয়েছে, দুস্কৃতীদের ছোড়া বোমার আঘাতে এক মহিলা সহ তিন জন আহত হন। তাদের ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতাল ও নৈহাটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। যদিও পুলিশের দাবি দুজন আহত হয়েছে।

ভাটপাড়া তৃণমূলের কনভেনার সোমনাথ শ্যাম বলেন, ‘হালিশহর ও কাঁচরাপাড়া পুরসভা হাতছাড়া হওয়ার পর ভাটপাড়ায় নতুন করে সন্ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করতে অর্জুন সিং এসব করছে৷” উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ভাটপাড়া থানার অন্তর্গত কাঁকিনাড়া ৫ নম্বর রেলওয়ে সাইডিং রোডে বাদল সিংয়ের বাড়িতে বোমা মারে দুষ্কৃতীরা। অল্পের জন্য রক্ষা পায় মা ও শিশু৷ বাদল সিংয়ের স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা সিং তার ছোট এক মাসের শিশুকে নিয়ে ঘরে ছিলেন। শিশুটি ঘুমাচ্ছিল। হঠাৎই বাদল সিংয়ের টালির চালে বোমা পড়ে। এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন প্রিয়াঙ্কা দেবী। সঙ্গে সঙ্গে তিনি তার সন্তানকে বাঁচাতে কোনওক্রমে ঘর থেকে বাইরে বেরিয়ে আসেন। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসে ভাটপাড়া থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। ঘটনাস্থলে পুলিশ আসলে পুলিশ কর্মীদের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন এলাকার বাসিন্দারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here