kolkata news
Highlights

  • যুবককে পিটিয়ে মারার অভিযোগে বিএসএফ ক্যাম্প ঘিরে বিক্ষোভ কয়েক হাজার গ্রামবাসীর
  • ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট থানার গোপালবাটি অঞ্চলের ভারত- বাংলাদেশ সীমান্ত কুমারগ্রামে
  • গ্রামবাসীরা বিএসএফ ক্যাম্পের সামনে বিক্ষোভ দেখিয়ে দেহ দেখানোর দাবি করে


নিজস্ব প্রতিনিধি, বালুরঘাট:
এক যুবককে পিটিয়ে মারার অভিযোগে বিএসএফ ক্যাম্প ঘিরে বিক্ষোভ কয়েক হাজার গ্রামবাসীর। আজ সকালে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট থানার গোপালবাটি অঞ্চলের ভারত- বাংলাদেশ সীমান্ত কুমারগ্রামে। মৃত যুবকের নাম অলোক বর্মন। গ্রামবাসীর অভিযোগ, রাতে জমিতে জল দিচ্ছিলেন অলোক বর্মন নামে ওই যুবক। সেই সময় অলোককে বিএসএফ তুলে আনে। এদিন সকালে গ্রামবাসীদের কাছে খবর পৌছয় যে, ক্যাম্পের ভেতরে তাকে পিটিয়ে মারে ফেলেছে বিএএফ। খবর শুনে গ্রামবাসীরা বিএসএফ ক্যাম্পের সামনে বিক্ষোভ দেখিয়ে দেহ দেখানোর দাবি করে। যদিও বিএসএফ এখনও পর্যন্ত ওই যুবকের দেহ দেখাতে পারেনি বলে জানা গেছে। আর এর পরেই উত্তেজনা দেখা দেয় সীমান্তের ওই গ্রামে।

যদিও বিএসএফ-এর তরফে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তবে উত্তেজনার খবর পেয়েই বালুরঘাট থানা থেকে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় পুলিশ। কোনওরকমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে মৃত যুবকের দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি পুরো ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এদিকে উত্তেজনার খবর পেয়ে এর পরেই বালুরঘাটের বিডিও অনুজ শিকদার বিশাল পুলিশ বাহিনি নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন। তারপর বিডিও বিএসএফ-এর অফিসারদের সঙ্গে কথা বলে বিএসএফ ক্যাম্পের অফিস ঘর থেকে ওই যুবকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত যুবকের পরিবারে দাবি, কাল রাতে অলোককে তুলে নিয়ে এসে মেরে ঝুলিয়ে রেখেছে বিএসএফ। খুনের অভিযোগ দায়ের করেছে মৃত যুবকের পরিবার। ঘটনাস্থলে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে।
পারিবারিক ও স্থানীও সূত্রে জানা গেছে, নিহত ওই যুবক ভিনরাজ্যে শ্রমিকের কাজ করতেন। সম্প্রতি বাড়ি ফিরে আসেন। বাড়ি ফিরে দিনগুজরান করতে পরের জমিতে দিনমজুরির কাজ করতেন। গতকাল সন্ধ্যায় যখন তিনি মাঠে কাজ করছিলেন, সেই সময় বিএসএফ তাকে বিনা কারণে তাদের ক্যাম্প ধরে নিয়ে যায়। অভিযোগ, ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়ার পর বিএসএফ তার ওপর ব্যাপক মারধর চালায়। সেই মারধরের চোটেই অলোকের মৃত্যু হয়। কিন্তু, বিএসএফ নিজেদের দোষ ঢাকতে অলোকের দেহটি তাদের ঘরের ভেতর ঝুলিয়ে দিয়ে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা চালায়।

যদিও বিএসএফ-এর ডিআইজি, টিপিএস সিধু অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, গতকাল সীমান্তে একদল চোরা চালানকারী বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ফেনসিডিল কাফ সিরাপ পাচার করার চেষ্টা চালাচ্ছিল। বিএসএফ জওয়ানরা তা দেখতে পেয়ে তাদের রুখতে ধাওয়া করলে অনান্যরা পালিয়ে গেলেও অলোক বর্মনকে প্রচুর ফেনসিডিল কাফ সিরাফের বোতল-সহ ধরা হয়। তাকে ক্যাম্পে নিয়ে আসার পর আজ সকালে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য একটি ঘরে রাখা হয়েছিল। আজ সকালে তাকে ওই ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। এব্যাপারে তদন্ত হয়ে সত্যিটা সামনে আসুক বলে দাবি করেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here