ডেস্ক: জম্মু কাশ্মীরের সাংবাদিক সুজাত বুখারি হত্যায় চাঞ্চল্যকর তথ্য পেল পুলিশ। বুখারি হত্যার তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পেরেছে ওই সাংবাদিক হত্যার পিছেন সরাসরি যোগ আছে পাকিস্তানের । এমনকি পাকিস্তানের নির্দেশেই জঙ্গিরা হত্যা করে বুখারিকে।

সম্প্রতি এই হত্যাকান্ডের তদন্তে নেমে গত ১৬ জুন এক পাক সাংবাদিক এরশাদ মাহমুদের ফেসবুক পোস্ট নজরে আসে পুলিশের। যিনি বুখারির অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ সাংবাদিক ছিলেন। একসঙ্গে দুবাইতে তাঁরা একটি সাংবাদিক সম্মেলনেও যোগ দেন। যেখানে উপত্যকার বিচ্ছিন্নতাবাদী দলগুলির বিরুদ্ধে গিয়ে উপত্যকায় শান্তির ফেরানোর জন্যই ছিল এই সম্মেলন। সেই সম্মেলনের জেরে লস্করের হুমকির মুখে পড়তে হয় বুখারিকে। লস্করের তরফ থেকে হুমকি সহ প্রতারক বলে উল্লেখ করা হয় তাঁদের।

ওই পোস্টে বুখারির মৃত্যু সম্পর্কে মাহমুদ আরও লেখেন, জমু কাশ্মীরের সংবাদপত্র রাইজিং অফ কাশ্মীরের লেখা দিনে দিনে ব্যাপক ভাবে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলির চক্ষুশূল হয়ে উঠেছিল। যার ফলস্বরূপ জঙ্গিরা ক্ষুব্ধ ছিল বুখারির উপর। তাঁর দাবি, কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলি কাশ্মীরের সমস্যা দূরীকরণ করার জন্য অন্য কোনও নতুন ভাবনা তারা নিতে চায় না। ওই সাংবাদিকের দাবি, বুখারির মতো ঘটনা এই প্রথমবার নয়, এর আগে বহুবার এই ঘটনার সাক্ষী থেকেছে তাঁরা। তাঁর মতে, ‘আসলে কাশ্মীর সম্পর্কে পাকিস্তানের যা অভিমত তাঁর বাইরে গিয়ে কেউ অন্যকিছু লিখুক তা চা