চোর সন্দেহে বালককে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক মার

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, বর্ধমান: ফের গণপিটুনির শিকার হল এক কিশোর। চোর সন্দেহে তাকে বেঁধে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল এক ব্যবসায়ী ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় পুলিশ গুরুতর জখম ওই কিশোরকে উদ্ধার করেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমানের জেলাশাসক এবং জেলা পুলিশ সুপার অফিসের ঢিল ছোড়া দূরত্বে কোর্ট কম্পাউন্ডের হকার্স মার্কেট এলাকায়। আহত কিশোর বর্ধমান স্টেশনের বাসিন্দা। বর্ধমান স্টেশনেই থাকে সে। রাস্তায় রাস্তায় প্লাস্টিকের পরিত্যক্ত জিনিসপত্র কুড়িয়ে নিয়ে গিয়ে সে বিক্রি করে।

জানা গেছে, এদিন দুপুর বেলায় সে হকার্স মার্কেটে একটি ইলেকট্রিকের দোকানের সামনে পড়ে থাকা প্লাস্টিক কুড়ানোর কাজ করছিল। তার সঙ্গে আরও একটি কিশোর ছিল। এই সময় হকার্স মার্কেটের একটি ইলেকট্রিক দোকানের মালিক ওই কিশোরদের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ আনে। দোকান মালিক আশিস চক্রবর্তীর অভিযোগ, দোকানের সামনে রাখা ৪টি বস্তা নিয়ে পালাচ্ছিল ওই কিশোররা। একজন কিশোর পালিয়ে গেলেও অন্যজন ধরা পড়ে। এরপর দোকানের সামনে থাকা একটি পাইপে বেঁধে তাকে বেধড়ক মারধর করা হয়। লোকজন জড়ো হয়ে গেলে তাকে ছেড়ে দেওয়া। এরপরই রাস্তায় পড়ে কাতরাতে থাকে ওই কিশোর।

খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।এই ঘটনায় পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। প্রাথমিক ভাবে দোকানের কর্মচারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। অন্যদিকে, ওই কিশোরকে মারধর করার ঘটনা স্বীকার করেছে দোকান মালিক আশিস চক্রবর্তী। তবে লোহার রড দিয়ে মারার কথা অস্বীকার করেছে। তার বক্তব্য, হাল্কা চড়-থাপ্পড় দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে তাকে। যদিও এই ঘটনার পরই দোকান ছেড়ে পালিয়ে যায় দোকান মালিক। তার খোঁজে পুলিশ তল্লাশি শুরু করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here