ডেস্ক: পাশবিক অত্যাচার বললেও যেন বিশেষণ কম পরে যায়। নিজের জন্মদাতা মা-কে পেটাতেও হাত কাঁপল না ব্যবসায়ী ছেলের। বিশাল ব্যবসা ও সম্পত্তির ঔদ্ধত্যে মেরেধরে নিজের বাড়ি থেকেই বের করে দিল সিউড়ি ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

বৃদ্ধা বিজলীপ্রভা মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, শনিবার রাত ১০টা নাগাদ বেধড়ক মারধর করে তাঁকে বাড়ির বাইরে বের করে দেয় সুব্রত। শুনশান রাস্তায় অসহায় অবস্থায় ঘুরে কুকুর শিয়াল ছিঁড়ে খাওয়ার মত অবস্থা হয় বৃদ্ধার। সেই সময় বৃদ্ধাকে দেখতে পায় পাড়ার কয়েকজন ছেলে। জিজ্ঞাসাবাদ করায় বৃদ্ধা খুলে বলেন ছেলের কুকীর্তির কথা। এরপর অভিযুক্ত সুব্রতবাবুকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি পুরোপুরি অভিযোগ অস্বীকার করেন। গুণধর ছেলে উল্টে দাবি করেন, মা নিজে থেকেই বেরিয়ে গিয়েছে।

এরপর চাপ দেওয়ার ফলে ধীরে ধীরে সুর নরম করেন সুব্রতবাবু। বলেন, মা ওষুধ খাচ্ছিল না সেই কারণেই গায়ে জল ঢেলে দিয়েছি। বের করে দেইনি। এরপর শুরু হয় স্থানীয়দের থার্ড ডিগ্রী। যুবকরা উত্তেজিত হয়ে সুব্রতবাবুকে মারধর শুরু করলে বাধ্য হয়ে মাকে বাড়ির ভেতর ঢুকিয়ে নেন সুব্রত। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, শুধুমাত্র ওষুধ খেতে না চাওয়ার জন্য কোনও ছেলে কি মাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়? অনেকে বলছেন, এর পিছনে রয়েছে মায়ের সম্পত্তি। সম্পত্তি হাতিয়ে নেবার জন্যই নাকি মাকে বের করে দেয়ার প্ল্যান করেছিল ছেলে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here