kolkata news
Parul

মহানগর ডেস্কঃ এখনও হয়নি উপনির্বাচন। কবে হবে সে ব্যাপারেও নেই সদুত্তর। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেও জানিয়েছেন তিনি নির্বাচন করিয়ে নিতে চান দেরি না করে। কিন্তু কমিশনের পক্ষ থেকে এখনও জানানো হয়নি কিছু। তাই বৃহস্পতিবার জাতীয় নির্বাচন কমিশনের দরবারে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল।

ads

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, প্রচারের জন্য সাত দিনের সময় সময় যথেষ্ট। তারপরে করানো হোক উপ নির্বাচন। দ্বিতীয় দফায় রাজধানীর করোনা বিভিন্ন শর্ত আরোপ করার আগেও উপনির্বাচন সেরে ফেলার পক্ষে সওয়াল করেছিলেন মমতা। ঘাসফুল শিবিরের পক্ষ থেকে একাধিকবার বলা সত্বেও রাজ্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সদর্থক কোন ভূমিকা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। শেষ পর্যন্ত দিল্লির জাতীয় নির্বাচন কমিশনের দরবারে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঘাসফুল শিবির।

মমতা মুখ্যমন্ত্রী হলেও তিনি এখনও বিধায়ক নন। নন্দীগ্রাম থেকে দাঁড়িয়ে শেষ মুহূর্তে পরাস্ত হতে হয়েছিল তাঁকে। মুখ্যমন্ত্রীর আসনে থাকতে হলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাঁকে উপনির্বাচনে জিততেই হবে। ভবানীপুরের আসন থেকে মমতার দাঁড়ানোর কথা। উপনির্বাচন নিয়ে তৃণমূলের এই তৎপরতাকে কটাক্ষ করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর মতে ভয় পেয়ে তড়িঘড়ি উপনির্বাচন ছাড়তে চাইছেন মমতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here