kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নির্বাচনের পূর্বে বাংলায় এনআরসির দামামা বাজিয়েছিল বিজেপি। যার ফল জুটেছে তিন উপনির্বাচনে একেবারে গোল্লা। তবে এনআরসির আগে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে যখন সরব হয়েছে একাধিক রাজ্যের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গও, ঠিক সেই মুহূর্তে হুঁশিয়ারি দিয়ে দিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্পষ্ট ভাষায় তিনি জানিয়ে দিলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর দল যতই বিরোধিতা করুক না কেন, এই আইন পশ্চিমবঙ্গে চালু হবেই। পাশাপাশি নাগরিকত্ব আইনের আওতাভুক্ত প্রথম রাজ্য হবে বাংলা।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আইনের রূপ নেওয়ার পর এই বিলের তীব্র বিরোধিতা করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিস্কারভাবে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, কোনও পরিস্থিতিতে এই আইন এখানে লাগু হতে দেবেন না তিনি। তবে মমতার এই দাবিকে বিন্দুমাত্র পাত্তা দিতে নারাজ রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘এর আগে মমতা ৩৭০ ধারা বাতিলের বিরোধিতা করেছেন। সেটা লাগু হয়েছে। তিন তালাকের বিরোধিতা করেছেন সেটাও চালু হয়েছে। একইভাবে বিজেপি সরকার ক্যাবও লাগু করবে রাজ্যে।’ এরপরই মমতাকে প্রশ্ন ছুঁড়ে তিনি বলেন, ‘তবে কি ভোট হারানোর ভয়েই এই আইন রাজ্যে কার্যকর করতে দিতে চাইছেন না মমতা? যদি তাই হয় সেক্ষেত্রে উনি চান বা না চান এই আইন সবার প্রথমে লাগু হবে বাংলাতেই। দীর্ঘদিন ধরে শরনার্থীরা এই আইনের অপেক্ষায় রয়েছেন। এটা তাঁদের মৌলিক অধিকার। উনি সেই পাওনা থেকে তাঁদের বঞ্চিত করছেন কোন অধিকারে?’

শুধু তাই নয়, বিজেপির তরফে আরও জানানো হয়েছে, এই আইনের অপব্যাখ্যা করছে তৃণমূল। এটা শুধুমাত্র হিন্দু শরনার্থীদের ভারতে নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন। সেটাকে বন্ধ করার চেষ্টা করছেন মমতা। আসলে শাসকদল এটা করে অনুপ্রবেশকারীদের প্ররোচনা দিচ্ছে বলেও অভিযোগ তুলেছে বিজেপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here