Parul

মহানগর ডেস্ক: চকোলেট কে না ভালোবাসে। ছোট থেকে বড় সকলেই পছন্দ করে চকোলেট। চকোলেট প্রস্তুতকারক সংস্থা গুলির মধ্যে ‘ক্যাডবেরি’ অন্যতম। কিন্তু ক্যাডবেরি যখন চকলেট তৈরি করে তখন তাতে কি গোমাংস ব্যবহার করে? সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনই একটি টুইট ভাইরাল হয়েছে। যেখানে দাবি করা হয়েছে যে, ক্যাডবেরি যে চকোলেট বানায় তাতে গোমাংস ব্যবহার করে।

ads

এমনকি ক্যাডবেরি ওয়েবসাইটে একটি স্ক্রিনশট দিয়ে এই বক্তব্যটি জানানো হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, কোনও পণ্যে উপাদান হিসেবে জিলেটিন বা শিরিষ আঠা ব্যবহার করা হলে, তার অর্থ সেই পণ্যে মাংস ব্যবহার করা হয়েছে। আর এর পরেই ক্যাডবেরি চকোলেট বয়কটের ডাক দেওয়া হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় রবিবার ক্যাডবেরি ব্যবসায়ীদের স্ক্রিনশট হু হু করে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। অনেকেই সেই স্ক্রিনশট শেয়ার করে ক্যাডবেরির ভারতে বিক্রি করা দ্রব্যে গোমাংস থাকে বলেও দাবি করেছে।

হিন্দুরা যাকে দেবতা মনে করে, তাকে ক্যাডবেরি চকোলেট তৈরিতে ব্যবহার করছে, এমনটাই দাবি অনেকের। আর তারপরেই ক্যাডবেরির চকোলেট বয়কটের ডাক দেওয়া হয়। যদিও সেই বিতর্কে জল ঢেলে ক্যাডবেরি জানিয়ে দিয়েছে, এই বার্তা সম্পূর্ণ ভুল। ভারতে যে চকোলেট বিক্রি করা হয় তাতে কোনোভাবেই গোমাংস ব্যবহার করা হয় না। সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্যাডবেরি স্ক্রিনশট পোস্ট করে বলা হয়েছে।

ক্যাডবেরি চকোলেটে জিলেটিন থাকে। তা হালাল সার্টিফাইড। গোমাংস থেকে নেওয়া জিলেটিন খাবারে ব্যবহৃত উপাদান যা সাধারণত জন্তু-জানোয়ারের টিস্যু থেকে সংগ্রহ করা হয়। অনেকেই স্ক্রিনশটের বক্তব্যে বিশ্বাস করে তাদের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। বিতর্ক ছড়াতেই আসরের নেমেছে ক্যাডবেরি। সংস্থার বক্তব্য, এই টুইটটি ভুল ও বিভ্রান্তকর। কারণ এর সঙ্গে ভারতের কোন সম্পর্ক নেই। ক্যাডবেরি ভারতে যত পণ্য বিক্রি করে তাতে গোমাংস বা আদৌ কোন মাংস জাতীয় উৎপাদন থাকে না। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিধি মেনে খাদ্যদ্রব্য তৈরি করে লন্ডনের ক্যাডবেরি এন্টারপ্রাইজ প্রাইভেট লিমিটেড।

যদিও স্ক্রিনশটটি ভালো করে খুঁটিয়ে দেখলেই স্পষ্ট হয় যে ওয়েবসাইটে ক্যাডবেরি অস্ট্রেলিয়া, ভারতের নয়। ভারতে ক্যাডবেরি পণ্যের গায়ে সবুজ লেভেল থাকে। যার অর্থ তা নিরামিষ। ক্যাডবেরি চকোলেটের সাধারণত থাকে কোকো, চিনি, মিল্ক সলিড, ফ্লেবার। ভারতে তৈরি, বিক্রি হওয়া তাদের সব পণ্য ১০০ শতাংশ নিরামিষ। এছাড়াও ক্যাডবেরির পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে যে, শেয়ার করার আগে তাদের পণ্য সম্পর্কে প্রকৃত তথ্য যাচাই করা হোক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here