ডেস্ক: পঞ্চায়েত পূর্বে আদালতের চাপ বাড়ল প্রশাসনের উপর। প্রদেশ কংগ্রেসের দায়ের করা জনস্বার্থ মামলায় এবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছ থেকে হলফনামা চাইল কলকাতা হাইকোর্ট। হলফনামা জমা দেওয়ার জন্য আগামী ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে কমিশনকে। কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ এই রায় দেয়।

এছাড়াও আদালতের তরফে জানানো হয়েছে যেসব জায়গায় পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়ন জমা দেওয়া হচ্ছে সেখানে যেন পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়। অশান্তি বা গণ্ডগোলের অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যেন ব্যবস্থা নেওয়া হয় তা জানিয়েও জেলা পুলিশকে কড়া নির্দেশ দিয়েছে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।

১৬ এপ্রিলের মধ্যে জমা দেওয়া হলফনামায় কমিশনকে জানাতে বলা হয়েছে, শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করতে কমিশন কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে তা বিশদে জানাতে। এছাড়াও কত পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে, স্পর্শকাতর বুথের সংখ্যা কত ইত্যাদিও জানতে চাওয়া হয়েছে এই হলফনামায়। ১৬ এপ্রিল হলফনামা জমা পড়ার পর ২০ এপ্রিল ফের মামালাটি নিয়ে শুনানি হবে।

কমিশনকে হলফনামে জমা দেওয়ার এই নির্দেশে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি। বিচারপতিদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে অধীর বলেন, আদালত নির্দেশ দিয়েছে, কেউ ভোটে দাঁড়াতে চাইলে পুলিশ তাদের সাহাজ্য করবে। এই নির্দেশ পেয়ে আমরা ধন্য মনে করছি নিজেদের। একই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দেন, নির্বাচন যে তৃণমূল জিতবে এ বিষয়ে আমি নিশ্চিত। কারণ দুষ্কৃতিদের বোমা গুলির বর্ষণ দেখে বিরোধীরা ভয় পেয়ে আর মনোনয়ন দাখিল করতেই চাইছেন না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here