মহানগর ওয়েবডেস্ক: ভারত-আমেরিকা তো বটেই, বিশ্বের অন্যান্য দেশের জন্যও ক্রমশ চক্ষুশূল হয়ে উঠছে চিন। এবার সেই তালিকায় যোগ হল কানাডার নাম। সম্প্রতি চিনের সঙ্গে প্রত্যপর্ণ চুক্তির অবসান করে সম্পর্ক ছেদের ইঙ্গিত দিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। মাসকয়েক আগে বেজিং জোর করে হংকং-এ একটি জাতীয় সুরক্ষা আইন লাগু করে। যার প্রতিবাদে এই চুক্তি শেষ করার সিদ্ধান্ত নেন জাস্টিন ট্রুডো।

শুক্রবার কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জানিয়ে দিয়েছেন, ‘কানাডা আর স্পর্শকাতর সামরিক পণ্য হংকংয়ে সরবরাহ করবে না। এই সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর করা হব।’ ট্রুডো আরও জানান, কানাডাও এখন থেকে ধরে নেবে যে হংকংয়ে রফতানি করা সমস্ত সংবেদনশীল পণ্য মূল ভূখণ্ড চিনের জন্যই ব্যবহৃত। কানাডার এই নতুন পদক্ষেপকে স্বাধীনতার স্বার্থে নেওয়া এক পা পিছনে নেওয়া আখ্যা দিয়েছেন সেই দেশের বিদেশমন্ত্রী। কানাডার এই সিদ্ধান্তে খুব স্বাভাবিকভাবেই নিজেদের হতাশা প্রকাশ করেছে হংকং।

কানাডা ও চিনের মধ্যে ২০১৮ সালেই সম্পর্ক খারাপ হওয়ার সূত্রপাত। যার চরম অধ্যায়টি এখন বিশ্ব প্রত্যক্ষ করছে। সেই সময় চিনের হুয়েই প্রদেশের প্রধান অর্থনৈতিক আধিকারিক মেং ওয়্যাংঝুকে মার্কিন পরোয়ানায় গ্রেফতার করে কানাডা। এরপরই চিনে থাকা প্রাক্তন কূটনৈতিক মাইকেল কোভরি এবং ব্যবসায়ী মাইকেল স্পাভোরকে গ্রেফতার করে বেজিং। সেই ঘটনার পর থেকে আজ অব্দি ওই দুই কানাডিয়াকে মুক্ত করার জন্য দূতাবাসের সাহায্য মঞ্জুর করেনি বেজিং। সেই থেকেই চিন ও কানাডার সম্পর্কের অবনতি। যা এখন চরম আকার ধারণ করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here