ডেস্ক: চাবকে পিঠের ছাল ছাড়িয়ে দেওয়া, শ্মশানের টিকিট কাটা বা রাজ্যের পুলিশকে পেটানোর বুলি আওড়ে সর্বদাই বিতর্কের শিরোনামে বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তবে সমস্ত কিছুকেই দিলীপ ছাপিয়ে গেলেন এইবার। তৃণমূল নেতাদের ধরে ধরে এনকাউন্টারে মারার হুমকি দিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি। আর প্রত্যেকবারের মতো চেনা ছকে এবারও মামলা দায়ের হল দিলীপের বিরুদ্ধে। তবে শুধু দিলীপ নয়, অভিযোগ দায়ের হয়েছে জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি দেবাশিষ চক্রবর্তী সহ ৮ বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার জলপাইগুড়ি জেলার জেলাশাসকের দপ্তর ঘেরাও কর্মসূচী ছিল বিজেপির। সেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের অন্যান্য নেতাদের মধ্যে কূমন্তব্যের জন্য শিরোনামে অবস্থান করা দিলীপ ঘোষও। সেখানে বক্তব্য রাখতে উঠে দিলীপ বলেন, ‘মারের বদলে মার দিতে হবে। রসগোল্লা খাওয়ানোর কথা কেউ বন্ডে লিখে দেননি। বীরভূমে কেষ্টর মশারী ফুটো করে দিয়েছি।’ তবে এইটুকুটেই থামেননি তিনি একইসঙ্গে যোগ করেন, ‘গুলির বদলা গুলি, খুনের বদলা খুন। কার কোথায় গুলি লাগবে কেউ জানে না। গুনে গুনে গুলি চলবে আর গুনে গুনে লাশ তোলা হবে। তৃণমূলের অনেক নেতা দাদাগিরি করছেন চমকাচ্ছেন এদেরকে জেলে ভরা উচিৎ নাহলে এনকাউন্টারে গুলি করে মারা উচিৎ।’

একইসঙ্গে এই মঞ্চ থেকে পুলিশকেও একহাত নিতে ছাড়েননি তিনি। তাঁর কথায়, ‘কয়েকদিন পর পুলিশকর্মীদের পরিবারের সদস্যরা নিজেদের পরিচয় দিতে লজ্জা পাবেন। মানুষ এদেরকে সামাজিকভাবে বয়কট করবে।’ বলাবাহুল্য বিজেপি সভাপতির এহেন মন্তব্যের পর বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ, জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি দেবাশিষ চক্রবর্তী সহ ৮ বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে স্বপ্রনোদিতভাবে মামলা দায়ের করেন জলপাইগুড়ি থানার আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here