ডেস্ক: সারদা, নারদা, রোজভ্যালি এই তিন দুর্নীতি নিয়েই শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে সর্বদাই খড়্গহস্ত থাকেন বিরোধীরা। অথচ তাৎপর্যপূর্ণভাবে এখনও সেভাবে কোনও সুরাহা হয়নি এই তিন মামলার। যদিও নারদা নিয়ে ইডি ও সিবিআই তদন্তের গতি বাড়ালেও বহু ক্ষেত্রেই তা বিশবাঁও জলে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচন পূর্বে অর্থিক কেলেঙ্কারির এই সমস্ত মামলার তদন্তের গতি শহরে হাজির হলেন সিবিআইয়ের স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা। বুধবার এই সমস্ত তদন্তের দায়িত্বে থাকা অফিসারদের নিয়ে নিজাম প্যালেসে বৈঠকে বসেন তিনি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শহরে আসেন সিবিআইয়ের স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা। শহরে এসেই বুধবারের বৈঠকের জন্য তিনি তলব করেন সমস্ত অফিসারদের। এরপর বুধবার বিএসএফের এসকর্ট করা একটি গাড়িতে নিজাম প্যালেসে উপস্থিত হন তিনি। জানা গিয়েছে, সারদা, নারদা ও রোজভ্যালি মামলার সঙ্গে যুক্ত প্রায় ২৮ থেকে ৩০ জন তদন্তকারী অফিসার যোগ দিয়েছেন এই বৈঠকে। তাঁদের প্রত্যেকের কাছে ছিল এই মামলার সমস্ত ফাইল এবং ল্যাপটপ। নিজাম প্যালেসের ১৫ তলার কনফারেন্স হলে শুরু হয়েছে এই বৈঠক। একজন স্পেশাল ডিরেক্টর পর্যায়ের অফিসার রাজ্যে এই ধরনের বৈঠক এর আগে করেননি। ফলে এই বৈঠকের গুরুত্ব অপররিসীম।

এদিকে এই বৈঠককে ঘিরে কানাঘুষো শুরু হয়েছে রাজ্যে। তৃণমূলের অভিযোগ এই বৈঠক আসলে বিজেপির একটি নির্বাচনী কৌশল। ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচন। আর রাজ্যে শাসকদলের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলার জন্য সর্বদা হাতিয়ার করা হয় সারদা, নারদা এবং রোজভ্যালিকে। এর আগে এই মামলাগুলিকে নিয়ে মমতা ও মোদীর মধ্যে সমঝোতার অভিযোগ তুলেছিল রাজ্যের বিরোধী দলগুলি। ভোটপুর্বে যেভাবে আঁটঘাঁট বেঁধে মাঠে নামছে তৃণমূল তা ভয় ধরিয়েছে বিজেপির, তাই তৃণমূলকে বিপাকে ফেলতে সারদা, নারদাকে হাতিয়ার করে তৃণমূলকে বিপাকে ফেলার চেষ্টা শুরু করেছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। যার ফলেই এই আয়োজন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here