ডেস্ক: সিবিআই বিতর্ক কাণ্ডে আলোক ভার্মার পর এবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে হেঁটে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলেন রাকেশ আস্থানা। সিবিআই স্পেশাল ডিরেক্টর পদ থেকে তাঁকেও ছুটিতে পাঠানোর সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করেছেন তিনি।

বলাই বাহুল্য, আস্থানার এই পদক্ষেপে চাপ আরও বাড়বে নরেন্দ্র মোদী সরকারের উপর। তাঁকে যখন সিবিআই স্পেশাল ডিরেক্টরের পদে নিয়োগ করা হয়েছিল, তখন কম বিতর্ক হয়নি। কেন্দ্রের বদান্যতায় বছরখানেক সেই পদে বহাল ছিলেন তিনি। কিন্তু মাঝরাতে আচমকা আলোক ভার্মা ও রাকেশ আস্থানাকে মোদী সরকার ছুটিতে পাঠানোয় বিতর্কের আগুনে ঘি পড়ে। সুপ্রিম কোর্টের শরণাপন্ন হন সিবিআই ডিরেক্টর আলোক ভার্মা। তাঁর দেখানো পথেই এবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুপ্রিম বিচারালয়ে হাজির হলেন রাকেশ আস্থানা।

বিগত কয়েকদিন ধরেই সিবিআই দপ্তরে বিতর্ক সামাল দিতে কালঘাম ছুটছে কেন্দ্রের। একের পর এক তোপ দাগছেন বিরোধিরা। কেন্দ্র ঠেকা দেওয়ার চেষ্টা করলেও তা অনেকটা ‘শাক দিয়ে মাছ ঢাকা’-র মতো মনে হচ্ছে। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী আবার দাবি করছেন, রাফালে নিয়ে তদন্ত শুরু করার কারণেই রাতের অন্ধকারে সিবিআই ডিরেক্টরকে ছুটিতে পাঠিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। সবমিলিয়ে বিতর্কের আগুনে টগবগ করে ফুটছে জাতীয় রাজনীতি।

গোটা ঘটনায় কেন্দ্রীয় সরকারের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। কারণ এভাবে রাতের অন্ধকারে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি ও বিরোধী দলের পরামর্শ ছাড়া সিবিয়াই শীর্ষ নেতৃত্ব বদল বেআইনি। এই দাবি তুলেছেন খোদ রাহুল গান্ধীও। প্রসঙ্গত, সিবিআই ডিরেক্টর আলোক ভার্মার দায়ের করা মামলার রায় দিয়ে এদিন সুপ্রিম কোর্ট জানায়, তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত করবে সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্স কমিশন বা সিভিসি। দু’সপ্তাহের মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে হবে সিভিসিকে। শীর্ষ আদালত আরও জানায়, সিভিসি-র তদন্তে পর্যবেক্ষক হিসেবে থাকবেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এ কে পটনায়েক। পাশাপাশি ভারপ্রাপ্ত সিবিআই অধিকর্তা নাগেশ্বর রাওকে সমস্ত বদল হওয়া অফিসারদের তালিকা জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এই মামলার আগামী শুনানি ১২ নভেম্বর।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here