national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: শুক্রবার গভীর রাতে এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে, শপিং মল বাদে সব ধরণের দোকান ফের একবার খোলা যাবে। যদিও শুধুমাত্র শপস এন্ড এস্টেবলিস্টমেন্ট আইনে নথিভুক্ত দোকানগুলিই খোলা যাবে বলে শর্ত দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এই বিজ্ঞপ্তির পর স্বাভাবিকভাবে খুশি হয়েছিলেন জন সাধারণ। উৎসাহ বেড়েছিল আরও একদল মানুষের মধ্যে, যারা সুরাপ্রেমী। মনে করা হয়েছিল যে, এই বিজ্ঞপ্তির পরে মদের দোকান খুলতে আর বাঁধা থাকবে না। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের বিবৃতি সেই খুশির আমেজ বদলে দিল দুঃখে। কারণ, খোলা যাবে না মদের দোকান।

সর্বভারতীয় সংবাদসংস্থাকে সাক্ষাতকার দিয়ে কেন্দ্রীয় নির্দেশ জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের যুগ্মসচিব পি এস শ্রীবাস্তব। তিনি জানান, আপাতত খুলছে না মদের দোকান। একইসঙ্গে বন্ধ থাকবে রেস্তোরাঁ, সেলুনও। কেন্দ্রীয় সরকার যে বিবৃতি প্রকাশ করেছে তা দেশের সব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বলবৎ হবে। কিন্তু তার মধ্যে মদের দোকান, রেস্তোরাঁ বা সেলুন থাকছে না। শুধু দোকান বন্ধই নয়, কেন্দ্রীয় নির্দেশিকায় মদের অনলাইন ডেলিভারির আশাও বাতিল হয়ে গেছে। একইভাবে তামাক জাতীয় দ্রব্যের বিক্রির উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি থাকছে। একইভাবে কোনও ধরণের শপিং মল খোলা যাবে না। দোকানে সবচেয়ে বেশি ৫০ শতাংশ কর্মচারী থাকতে পারবে এবং তাদের মাস্ক পড়া ও সোশ্যাল ডিস্টানসিং মেনে চলা বাধ্যতামূলক।

উল্লেখ্য, গত ১৪ মার্চ জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যেই লকডাউন বহু মানুষের চিন্তা বাড়িয়েছে, প্রত্যেকটি মানুষ কষ্টে আছেন। কিন্তু করোনাভাইরাস আটকাতে দেশবাসী যে প্রয়াস করছেন তা অভূতপূর্ব। এই প্রেক্ষিতে তিনি সকল দেশবাসীকে প্রণাম জানান। পাশাপাশি এও বলেন, ভাইরাস পরিস্থিতি রুখতে ভারত বিশ্বের অন্যান্য দেশের অনেক আগে থেকেই পদক্ষেপ নিয়েছে। তাই আজকের দিনে দাঁড়িয়েও ভারতের অবস্থা অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক ভালো।

এই মন্তব্য করেই প্রধানমন্ত্রী, বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করে তিনি তাদের রাজ্যের পরিস্থিতির কথা জেনেছেন। মুখ্যমন্ত্রীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের আর্জি যাতে লকডাউন বাড়ানো হয়। তিনিও মনে করেন, যে এই পরিস্থিতিতে লকডাউন বাড়ানোই শ্রেয়। তাই বড় ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দেন, ৩ মে পর্যন্ত লকডাউন চলবে ভারতবর্ষে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here