kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যে ভোট-পরবর্তী হিংসা মাত্রাছাড়া পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে বলে ইতিমধ্যে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। চলতে থাকা হিংসা সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি রাজ্যপালকে ফোন করেন। এবার গোটা রাজ্যে ভোট-পরবর্তী হিংসার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে দিল্লি থেকে এল চার সদস্যের একটি কেন্দ্রীয় দল। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে পাঠানো ওই চার সদস্যের প্রতিনিধি দলে একজন অতিরিক্ত সচিব আছেন নেতৃত্বে। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ওই দলটি রাজ্যে বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে ঘুরে দেখবেন সেখানকার পরিস্থিতি।

​জানা গিয়েছে দিল্লি থেকে আসা ওই প্রতিনিধি দল প্রথমে যাবে কলকাতার বেলেঘাটা। সেখান থেকে তারা যাবে ব্যারাকপুরের শিল্পাঞ্চলের জগদ্দলে। এরপর প্রতিনিধিদলটি দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখবে বলে জানা গিয়েছে।

​উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গের নবনির্বাচিত সরকারকে গতকাল বুধবার একটি কড়া বার্তা পাঠিয়েছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ভোট-পরবর্তী হিংসার রিপোর্ট চেয়ে পাঠনো হয়। রিপোর্ট না পাঠানো হলে বিষয়টি গুরুতর ভাবে দেখা হবে বলে উল্লেখ করা হয়। গতকাল রাজ্যে আসেন বিজেপি’র কেন্দ্রীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। তিনি নিহত কয়েকজন দলীয় কর্মীর বাড়িতে যান। তারপর তিনি রাজ্যে চলতে থাকা হিংসা নিয়ে তৃণমূলকে আক্রমণ করে নিশানা করেন। তারপর আজ রাজ্যের হিংসা দেখতে দিল্লি থেকে এলেন চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। ওই দলটি হিংসা কবলিত এলাকা ঘুরে দেখে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে রিপোর্ট জমা দেবে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, গতকাল মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, নির্বাচনের পরে বিজেপি বেশকিছু জায়গায় ভুয়ো সংঘর্ষ ঘটিয়ে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নষ্ট করছে। তারা যে সব কেন্দ্রে জিতেছে, সেখান থেকেই বেশি সংঘর্ষের খবর আসছে। নির্বাচনের মধ্যেও তারা অনেক অত্যাচার করেছে বলে মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন। যদিও, রাজ্যে চলতে থাকা হিংসার জন্য তৃণমূলকে অভিযুক্ত করেছে বিজেপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here