ডেস্ক: পুলওয়ামার পাল্টা দিয়ে ইতিমধ্যেই প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানকে ভারত বুঝিয়ে দিয়েছে, পা পা বাধিয়ে ঝগড়া করতে এলে তাঁর যোগ্য উত্তর ভারত দিতে জানে। তবে ভারতের হামলার পর বুধবার ভারতের আকাশসীমায় প্রবেশের চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হয় পাক বিমান। এহেন উত্তেজনাময় পরিস্থিতিতে পাকিস্তান যে ভারতে ফের হামলা চালাতে পারে, সে আশঙ্কা একেবারেই এড়িয়ে যাচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার। উত্তেজনাময় এহেন পরিস্থিতির মাঝে এবার ভারতের নৌসেনা ও উপকূলরক্ষী বাহিনীকে চূড়ান্ত সতর্ক থাকার নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে এই নির্দেশ আসার পর ব্যাপক সতর্কতা জারি করা হয়েছে মহারাষ্ট্র ও গুজরাতের উপকূলে। অনুমান করা হচ্ছে, যেভাবে ২০০৮ সালে মুম্বই হামলার সময় সমুদ্রপথ বেছে নিয়েছিল জঙ্গিরা। ঠিক সেইভাবেই হয়ত ভারতের উপর হামলার ছক আঁটতে শুরু করেছে পাকিস্তান। ইতিমধ্যেই ওই এলাকায় থাকা সমস্ত মাছ ধরার ট্রলারগুলিতে তল্লাশি চালাতে শুরু করেছে নিরাপত্তাবাহিনী। পাশাপাশি অন্য একটি সূত্রের তরফে জানা যাচ্ছে, আকাশ ও স্থল দুইপথে সেভাবে এঁটে উঠতে পারবে না এই অনুমানে এবার জলপথে সাবমেরিন নিয়ে ভারত্যের উপর হামলা চালাতে পারে পাক সেনা। সেহেতু, সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে নৌসেনা ও উপকূলরক্ষী বাহিনীকে। কোনও ভাবে পাকিস্তান যদি ভারতের উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে তবে তার যোগ্য জবাব দিতে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে নৌসেনাকে।

উল্লেখ্য, ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামার জঙ্গি হামলা প্রাণ কেড়েছিল ৪০ ভারতীয় সেনার। তার ঠিক বারো দিনের মাথার মঙ্গলবার পাকিস্তানের ঘরের ভিতর ঢুকে বালাকোটে বিমান হামলা চালায় ভারত। গুড়িয়ে দেওয়া হয় জইশের সবচেয়ে বড় জঙ্গি ঘাঁটি। তার পাল্টা দিতে গিয়ে ভারতে পাক বিমান অনুপ্রবেশের চেষ্টা করলে তাড়া খেয়ে ফিরে যায় তারা। তবে অন্য পথে তারা যে ফের হামলা চালাতে পারে এই অনুমান উড়িয়ে দিচ্ছে না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। তাই, জারি করা হল চূড়ান্ত সতর্কতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here