মহানগর ডেস্ক: দেশজুড়ে অব্যাহত মৃত্যুমিছিল। করোনার করাল গ্রাস ভারতমাতার কোল থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে তার প্রায় ২ লাখ ৩৪ হাজারেরও বেশি সন্তানকে। করোনা সংক্রমনে লাগাম দিতে ব্যর্থ মোদি সরকার, যা নিয়ে সমালোচনায় মুখর কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী। যদিও সেসবের তোয়াক্কা না করেই ২০০০ কোটি টাকার বিনিময়ে জরুরী ভিত্তিতে তৈরি হতে চলেছে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন। যা নিয়ে প্রধামন্ত্রীকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ শানালেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।

করোনার দ্বিতীয় সংক্রমণ যেভাবে দপিয়ে বেড়াচ্ছে দেশ জুড়ে, তাতে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ ভারত। প্রতিদিনই লাফিয়ে লফিয় বাড়ছে দৈনিক সংক্রমণ, কিছুতেই ঠেকানো যাচ্ছে না অকাল মৃত্যু। হাসপাতালে বেডের আকাল, অক্সিজেন সহ একাধিক অপতকালীন ওষুধপত্র অপ্রতুল। এই পরিস্থিতিতে দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে যখন হিমশিম খাচ্ছে সরকার, তখন ২০,০০০ কোটি টাকা খরচ করে মোদির ‘সাধের’ সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্প নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন রাহুল গান্ধী। এদিন সকালে টুইট করে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন নির্মাণ করে টাকার শ্রাদ্ধ করছে কেন্দ্র। মানুষের প্রাণ বাঁচানোর দিকে নজর না দিয়ে নতুন বাসভবন নির্মাণ, প্রধানমন্ত্রীর অহংকার ছাড়া আর কিছুই না।’   

অক্সিজেন সহ জরুরী ওষুধের হাহাকার দেশজুড়ে। প্রতিদিনই হুহু করে বাড়ছে সংক্রমণ, মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে দেশ। এই পরিস্থিতিতে ‘জরুরী’ ভিত্তিতেই সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্প বাস্তবায়নে উঠেপড়ে লেগেছে সরকার। বিরোধীরা এই নিয়ে সমালোচনা করলেও কে শোনে কার কথা! নিজের সিদ্ধান্তে অনড় মোদি সরকার। এই নিয়ে কয়েক সপ্তাহ আগেই প্রধানমন্ত্রীকে টোপ দেগে রাহুল গান্ধী বলেছিলেন, ‘সেন্ট্রাল ভিস্তা অত্যাবশ্যক নয়, বরং প্রয়োজন এক দূরদৃষ্টি সম্পন্ন কেন্দ্রীয় সরকার।’ এমনকি এই প্রকল্প নির্মাণে স্থগিতাদেশ চেয়ে মামলাও হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। টাকার ‘শ্রাদ্ধ’ না করে করোনা  ঠেকাতে দেশবাসীকে যাতে অবিলম্বে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়, সেই নিয়েই আওয়াজ উঠতে শুরু করেছে দেশজুড়ে।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here