corona vaccine

মহানগর ডেস্ক:   পর পর দুই দিন দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্ত দুই লক্ষ ছাড়াল। করোনায় সব থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মহারাষ্ট্র। মহারাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬০ বেশি মানুষ। এই পরিস্থিতি মহারাষ্ট্র সরকারের অধীনে হাফকিন ইনস্টিটিউটকে ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন তৈরির অনুমতি দিল কেন্দ্র। ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে।

কোভ্যাক্সিন তৈরির অনুমোদন পাওয়ার কথা টুইটারে মহারাষ্ট্র সরকার জানিয়েছে। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে জানানো হয়েছে, কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান মন্ত্রক হাফকিন ইনস্টিটিউটকে করোনার ভ্যাকসিন কোভ্যাক্সিন তৈরির অনুমোদন দিয়েছে। অনুরোধে সাড়া দেওয়া জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর উদ্ধব ঠাকরে। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই উদ্ধব ঠাকরে প্রধানমন্ত্রীকে হাফকিন ইনস্টিটিউটে কোভ্যাক্সিন তৈরির অনুমোদনের জন্য অনুরোধ করেছিলেন। এখন কোভ্যাক্সিন শুধু হায়দরাবাদ ভিত্তিক সংস্থা বায়োটেক তৈরি করছে।

মহারাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতি দেশের মধ্যে সব থেকে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৬১,৬৯৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ৩৪৯ জন করোনায় মারা গিয়েছে। করোনায় দ্বিতীয় ঢেউ দেশে আছড়ে পড়ার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে দেশে করোনার ভ্যাকসিনের চাহিদা বেড়ে যায়।। বিভিন্ন রাজ্যের পাশাপাশি মহারাষ্ট্রে করোনার ভ্যাকসিনের ঘাটতি দেখা যায়। করোনা ভ্যাকসিনের অভাবে মহারাষ্ট্রের ২৬টি কেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপরেই মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্য মন্ত্রী দাবি করেন, বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে বেশি করে ভ্যাকসিন দিচ্ছে কেন্দ্র। অন্য দিকে, হর্ষবর্ধন অভিযোগ করেন, মহারাষ্ট্রের গাফিলতির জন্য দেশে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ আকারে বেড়ে গিয়েছে। সেই বিতর্কের ঊর্ধ্বে উঠে করোনার ভ্যাকসিন তৈরির অনুমোদন দেওয়া স্বাভাবিকভাবেই খুশি মহারাষ্ট্র সরকার।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here