ডেস্ক: দলাই লামা ও ভারত, চিরকালই এই দুই’য়ের সম্পর্ক দিল্লি এবং তিব্বতের মধ্যে পরিচয় সূত্র স্থাপন করেছে। কিন্তু সম্ভবত সেই সম্পর্কে এবার ফাটল ধরতে চলেছে। চিনকে না চটাতে দলাই লামার সঙ্গে তফাত আরও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে নয়াদিল্লি। তিব্বতী ধর্ম যাজকের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াতে আগামী দেড় মাসে দলাই লামার সকল কর্মসূচী থেকে নেতামন্ত্রী এবং সরকারি আমলাদের সরে আসার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের শেষেই দলাই লামার ভারতে আসার ৬০ বছর পূরণ হতে চলেছে। এই শুভ আগমন তারিখ উদযাপন করতে আয়োজন করা হয়েছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের। যেখানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন দলাই লামা খোদ। কিন্তু ফেব্রুয়ারি মাসের ২২ তারিখ বিদেশ সচিব বিজয় গোখলে পিকে সিনহাকে এই বিষয়ে চিঠি লিখে জানান, সরকারি আমলারা যেন অনুষ্ঠানগুলিকে বর্জন করেন। এছাড়াও, গোপন বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় মন্ত্রক, সরকারি দফতর এবং রাজ্যের মন্ত্রককে জানানো হয়েছে এই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণে সাড়া না দিতে।

দলাই লামা তিব্বত থেকে ভারতে পালিয়ে আসার পর থেকেই চিনের সঙ্গে রাজনৈতিক সম্পর্কের ইতি ঘটে তাঁর। ভারতের বিরুদ্ধে এই নিয়ে বেশকয়েক বার নিজেদের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিল চিন। এমনকি ডোকালাম সমস্যার সময়ও শান্তির আর্জি জানিয়ে ভারতের পাশেই দাঁড়ান এই যাজক। কিন্তু সেই ষাট বছরের সুসম্পর্কের ইতি এবার ঘনিয়ে এসেছে। ভারত সরকারের সঙ্গে লামার ঘনিষ্ঠতা চিন যেহুতু ভাল চোখে দেখে না, তাই চিনকে আর না চটাতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ছে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের। যদিও ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক তরফে শুক্রবার এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ভারতে ধর্ম প্রচারে দলাই লামাকে কোনও বাধা দেওয়া হবে না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here