kolkata news

 

বিশেষ প্রতিনিধি, কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় আমফান-উত্তর পরিস্থিতি মোকাবিলায় যে কোনও রকম সহায়তায় প্রস্তুত বলে রাজ্যকে ফের আশ্বস্ত করল কেন্দ্রীয় সরকার। ক্যাবিনেট সচিব রাজীব গৌবার পৌরহিত্যে সোমবার জাতীয় সংকট ব্যবস্থাপনা কমিটি এনসিএমসি-র  বৈঠক বসে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কমিটির এই পঞ্চম বৈঠকে রাজ্যের প্রতিনিধিত্ব করেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। সেখানে ত্রাণ ও পুনর্গঠনের কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। ক্যাবিনেট সচিব জানিয়েছেন ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি মত রাজ্যকে এক হাজার কোটি টাকা দিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেনা ও জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী-সহ বিভিন্ন কেন্দ্রীয় সংস্থা রাজ্য সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে রাজ্যে পুনর্গঠন এর কাজ করছে। প্রয়োজনে আরও সহায়তার জন্য তারা প্রস্তুত।

প্রয়োজনে রাজ্যকে দেওয়ার জন্য বাড়তি খাদ্যশস্য মজুদ রাখা হয়েছে। বিদ্যুৎ পানীয় জল এবং টেলি যোগাযোগের মত পরিষেবা ক্ষেত্রকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে স্বাভাবিক করে তোলার ওপর ক্যাবিনেট সচিব জোর দিয়েছেন। রাজ্যের পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের একটি দলও খুব শীঘ্রই রাজ্যে আসবে বলে তিনি জানিয়েছেন। মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা এই বৈঠকে ত্রাণ ও পুনর্গঠনএর কাজে কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলির সহায়তার জন্য ধন্যবাদ জানান।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় আমফানের প্রকোপে বিপর্যস্ত রাজ্যের জরুরি পরিষেবা পরিকাঠামোর ৮০ শতাংশই ইতিমধ্যে পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ সংক্রান্ত বাকি কাজও অতি দ্রুত শেষ করা হবে বলে সোমবার তিনি আশ্বাস দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের পাশাপাশি জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। সেনাবাহিনী, ওড়িশা সরকারের পাঠানো বিপর্যয় মোকাবিলা দল হাতে হাত মিলিয়ে দিনরাত কাজ করে চলেছেন।

সম্মিলিত তৎপরতায় বিদ্যুৎ, জল সরবরাহ, ভেঙে পড়া গাছ সরিয়ে রাস্তা অবরোধ মুক্ত করা এবং বিপন্ন মানুষের কাজের ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। ইতিমধ্যেই সমস্ত  গুরুত্বপূর্ণ হাসপাতাল, জল শোধন ও সরবরাহ প্রকল্প, সেচ, নিকাশির পাম্পিং স্টেশন, বিদ্যুতের সাব স্টেশনগুলিকে পুরোপুরি স্বাভাবিক করে তোলা হয়েছে। বাকি পরিকাঠামো স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত একই রকম তৎপরতার সঙ্গে কাজ চালিয়ে যাওয়া হবে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। তিনি বলেন, রাজ্যের ইতিহাসে সবথেকে বড় এই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পর জনজীবনকে স্বাভাবিক করে তুলতে ২ লক্ষ ৩৫ হাজারের বেশি লোক কাজ করে চলেছেন। মুখ্যমন্ত্রীর তাদের সকলকে সাধুবাদ জানান।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here