chaina

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ক্রমশ ভয়াবহ হচ্ছে করোনা ভাইরাস। ইতিমধ্যেই চিনে এই ভাইরাসের জেরে মৃত্যু হয়েছে ২১৩ জনের। আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ৮০৯ জন। ভয়াবহ এই মহামারীর জেরে জরুরী অবস্থা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’। এহেন পরিস্থিতিতে প্রাণ বাঁচাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে চিনের বাসিন্দারা। চূড়ান্ত সতর্কতায় মুখের মাস্ক ছাড়া ঘরের বাইরে বেরই হচ্ছেন না সেখানকার মানুষ। তবে সমস্যা বেধেছে অন্য জায়গায়। এই বিপুল পরিমাণ মাস্ক জোগান দিতে হিমসিম খেতে হচ্ছে সরকারকে। ঘটনার জেরে প্রাণ বাঁচাতে মরিয়া মানুষ। সামনে যা পাচ্ছেন তা দিয়েই ঢেকে ফেলছেন নিজের মুখ নাক। মাস্কের পরিবর্ত হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে মহিলাদের অন্তর্বাস ব্রা, স্যানিটারি ন্যাপকিন, কেউ আবার ব্যবহার করছেন বড় সাইজের লেবুর খোসা ইত্যাদি।

Image result for china use bra in mouth to protect himself"

সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর, করোনা আতঙ্কের জন্য দেশজুড়ে আকাল বেড়েছে মাস্কের। কোথাও বা মাস্কের দাম বেড়ে হয়েছে ১০ গুণ। এমন পরিস্থিতিতে বিকল্প হিসাবে নিজের মতো করে মাস্ক তৈরি করে নিচ্ছেন বাসিন্দারা। সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে সেই সমস্ত অদ্ভুত ছবি। যেখানে দেখা গিয়েছে, কেউ মাস্কের পরিবর্ত হিসাবে মুখে লাগিয়ে নিয়েছেন মহিলাদের অন্তর্বাস। কারও বা মুখে আবার স্যানিটারি ন্যাপকিন। কেউ আবার প্লাস্টিকের বোতল কেটে হেলমেটের মতো মুখে লাগিয়ে নিয়েছেন, কারও মুখে আবার ফলের খোসা। সব মিলিয়ে চিনের বিভিন্ন প্রান্তে দেখা যাচ্ছে এমন সব অদ্ভুত চিত্র। তবে এই সবকিছুই ঘটছে প্রাণ বাঁচানোর তাগিদে।

Image result for china use bra in mouth to protect himself"

তবে মাস্কের এত আকালের পিছনে চিনের স্বাস্থ্যকর্মীদের দাবি, মানুষজন ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে যে মাস্ক ব্যবহার করছেন তা মূলত ৪ ঘণ্টা ব্যবহার করা যায় ৪ ঘন্টার পর ওই মাস্ক ফেলে দিতে হয়। অন্যথায় সংক্রমণের ভয় থেকেই যায়। যার জেরেই এমনটা হচ্ছে বলে দাবি তাঁদের।

Image result for china use bra in mouth to protect himself"

এদিকে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় ‘হু’র ডিরেক্টর জেনারেল অ্যাডানোম গ্রেবিয়াসিস এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা করেন। চিনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে উৎপত্তি হওয়া করোনা ভাইরাসের আক্রমণ অন্য দেশগুলোতেও দেখা যাচ্ছে। ইতিমধ্যে চিনের সবগুলো প্রদেশ ছাড়াও অন্তত ২০টি দেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

Image result for china use bra in mouth to protect himself"

এক বিবৃতিতে হুয়ের প্রধান টেড্রস অ্যাডানোম গ্যাব্রিয়াসিস বলেন, “জরুরি অবস্থা ঘোষণার পেছনে মূল কারণ চিনে যা ঘটছে তা নয় বরং অন্যান্য দেশে এটা ছড়িয়ে পড়ছে। এটা আশঙ্কার।” তাঁর কোথায় উদ্বেগের বিষয় হচ্ছে যে সব দেশের স্বাস্থ্য সেবা ততটা উন্নত নয় সে সব দেশে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া।

ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিনে মৃতের সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে ২১৩। এর মধ্যে শুধুমাত্র হুবেই প্রদেশেই মৃত্যু হয়েছে ২০৪ জনের। গোটা দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯,৯৬২। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেব মতে চিনের বাইরে ১৮টি দেশে ৯৮ জনের শরীরের এমন ভাইরাস পাওয়া গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here