ডেস্ক: মেসিকে ছাড়াই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে সহজ জয় পেল বার্সেলোনা। ইতালিয়ান জায়ান্টস ইন্টার মিলানকে ২-০ গোলে হারাল কাতালান ক্লাব। গোল করেন আলকান্তারা ও জর্দি আলবা।

গত রবিবার সেভিয়ার বিরুদ্ধে লা লিগার ম্যাচে হাতে গুরুতর চোট পেয়েছিলেন মেসি। এর ফলে আগামী ৩ সপ্তাহ মাঠের বাইরে চলে যান ফুটবলের রাজপুত্র। ফলে এদিন তাঁকে ছাড়াই দল সাজিয়েছিলেন ভালভার্দে। ম্যাচের শুরু থেকেই একের পর এক বার্সা আক্রমণে নাজেহাল অবস্থা হয় ইন্টার ডিফেন্সের। ৩২ মিনিটে লুই সুয়ারেজের পাস থেকে বার্সার হয়ে প্রথম গোল করেন আলকান্তারা। এরপর একেবারে ম্যাচের শেষলগ্নে রাকিতিচের অ্যাসিস্ট থেকে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন বার্সা ডিফেন্ডার জর্দি আলবা।

বার্সেলোনার পাশাপাশি সহজ জয় পেয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট লিভারপুল। সার্বিয়ান ক্লাব রেড স্টার বেলগ্রাদকে ৪-০ ব্যবধানে হারান ইউগেন ক্লপের ছেলেরা। জোড়া গোল করে ম্যাচের নায়ক মোহাম্মেদ সালাহ। ম্যাচের বয়স যখন কুড়ি, তখন লিভারপুলকে এগিয়ে দেন ব্রাজিলিয়ান ফির্মিনো। এরপর ৪৫, ও ৫১ মিনিটে জোড়া গোল করে লিভারপুলের বড় জয় নিশ্চিত করেন ‘মিশরের মেসি’ মোহাম্মেদ সালাহ। ম্যাচের শেষ লগ্নে রেড স্টারের কফিনে শেষ পেরেক পোঁতেন সাদিও মানে।

অন্যদিকে, অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে বড় ব্যবধানে হারিয়েছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড। হাইভোল্টেজ ম্যাচে দেয়েগো সিমিয়নের ছেলেদের ৪-০ গোলে হারাল জার্মান ক্লাব। তবে স্কোরবোর্ড দেখে একপেশে মনে হলেও, খেলাটি হয় তুল্যমূল্য। ৩৮ মিনিটে হাকিমির অ্যাসিস্ট থেকে গোল করেন উইটসেল। এক গোলে পিছিয়ে পড়ার পর ম্যাচে ফেরার প্রবল চেষ্টা করে মাদ্রিদ। কিন্তু ম্যাচের শেষ ২০ মিনিটে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে অ্যাথলেটিকো ডিফেন্স লাইন। ৭৩ ও ৮৯ মিনিটে জোড়া গোল করেন রাফায়েল গুরেইরো এবং ৮৩ মিনিটে একটি গোল করেন সাঞ্চো।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজেদের ম্যাচে আটকে গেল পিএসজিও। বলা ভালো ডি মারিয়ার শেষ মুহূর্তের গোলে হার বাছাল ফ্রান্সের ক্লাবটি। নাপোলির সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করল তুচেলের ছেলেরা। ম্যাচের ২৯ মিনিটে লরেঞ্জোর গোলে এগিয়ে যায় নাপোলি। ৬১ মিনিটে পিএসজিকে সমতায় ফেরান মারিও রুই। এরপর ৭৭ মিনিটে ফের একবার ইতালিয়ান ক্লাবকে এগিয়ে দেন মের্টেন্স। পিএসজির হার যখন প্রায় নিশ্চিত, সেই সময় পরিত্রাতা হয়ে ধরা দিলেন আর্জেন্টাইন তারকা আঞ্জেল ডি মারিয়া। অতিরিক্ত সময়ে দ্রাক্সলারের অ্যাসিস্ট থেকে দুরন্ত গোল করে পিএসজির এক পয়েন্ট নিশ্চিত করেন তিনি। শেষমেশ ২-২ ব্যবধানে অমীমাংসিত ভাবে শেষ হয় খেলা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here