বহু আলোচিত ‘ট্যাংক ম্যান’ আলোকচিত্রী চার্লি কোল প্রয়াত

0
321
kolkata bengali desk

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সারি বেঁধে আসা ট্যাংকের চলার পথে শপিং ব্যাগ হাতে দাঁড়িয়ে আছেন এক ব্যক্তি। পরনে সাদা শার্ট, কালো প্যান্ট। চিনের তিয়েনআনমেন স্কোয়ারের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন সম্পর্কে যাঁরা জানেন, তাঁদের কাছে ট্যাংকের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা ব্যক্তির ছবিটি অতিপরিচিত। গণতান্ত্রিক আন্দোলনে প্রতিবাদের প্রতীক হিসেবে পরিণত হয় ছবিটি। ঘটনার ৩০ বছর পরও দিবসটি পালনের সময় এই ছবির ওই ব্যক্তির আদলে প্রতীকী প্রতিবাদ জানায় মানুষ। সেই ছবির কারিগরদের অন্যতম চার্লি কোল মারা গেলেন৷ মার্কিন এই চিত্রসাংবাদিক ইন্দোনেশিয়ার বালিতে বসবাস করছিলেন। সেখানে ৬৪ বছর বয়সে তাঁর মৃত্যু হয়।

‘ট্যাংক ম্যান’ ছবিটির জন্য চার্লি কোল ১৯৯০ সালে ওয়ার্ল্ড প্রেস ফটো পুরস্কার জিতেছিলেন। ১৯৮৯ সালের ৫ জুন কোলসহ চার চিত্রসাংবাদিক ছবিটি তুলতে পেরেছিলেন। তিনি একটি হোটেলের ব্যালকনি থেকে টেলিফটো লেন্স ব্যবহার করে মার্কিন সাময়িকী নিউজউইকের জন্য ছবিটি তুলেছিলেন। পরে এক সাক্ষাৎকারে কোল জানান, তিনি ভেবেছিলেন ট্যাংকের সামনে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করা অজ্ঞাতনামা প্রতিবাদকারীকে মেরে ফেলা হবে। তাঁর তখন মনে হয়েছিল, এরপর কী ঘটে সেটার রেকর্ড রাখা তাঁর দায়িত্ব। তবে ওই সময় ২জন লোক এসে ওই ব্যক্তিকে টেনে নিয়ে যান। এরপর কী ঘটেছে তা তাঁর জানা নেই।

‘ট্যাংক ম্যান’ ছবিটি যে চারজন তুলেছিলেন, তাঁর মধ্যে অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) আলোকচিত্রী জেফ ওয়াইডনেরও একজন। সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, নব্বইয়ের দশকে এক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে কোলের সাংবাদিক পেশায় ছেদ পড়ে। টোকিও যাওয়ার পথে তাঁর হার্লে ডেভিডসন গাড়িটি দুর্ঘটনায় পড়লে তাঁর বাম পা কেটে ফেলতে হয়। দীর্ঘ চিকিৎসার পর তিনি টোকিও থেকে প্রথমে জাকার্তা এবং পরে বালিতে চলে আসেন। ধীরে ধীরে তিনি বাণিজ্যিক আলোকচিত্র থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেন। শারীরিক অনেক যন্ত্রণা ভোগের পর বিদায় নিলেন চার্লি কোল৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here