covaxine
বিতর্কে কোভ্যাক্সিন

মহানগর ডেস্ক: ভারত বায়োটেকের তৈরি করোনার ভ্যাকসিন ঠিক করে ট্রায়াল হয়নি। এই নিয়ে বিতর্কের মধ্যে দেশ জুড়ে টিকাকরণ শুরু হয়েছে। তবে অনেক চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী কোভ্যাক্সিন নিতে অস্বীকার করেছেন। এই পরিস্থিতি ছত্তিশগড়ের কংগ্রেস সরকার কোভ্যাক্সিন আর রাজ্যে না পাঠানোর জন্য আবেদন করল। পাল্টা স্বাস্থ্যমন্ত্রী আশ্বস্ত করে ছত্তিশগড় সরকারকে লিখেছেন, কোভ্যাক্সিন নিরাপদ।

ছত্তিশগড়ের স্বাস্থ্যমন্ত্রী টি এস দেও জানান, ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন তৃতীয় দফায় ট্রায়াল হয়নি। যার জেরে এই ভ্যাকসিনকে কোনওভাবেই সাধারণ মানুষের জন্য নিরাপদ তা মেনে নেওয়া যাচ্ছে না। পাশাপাশি তিনি বলেন, এই ভ্যাক্সিনের গায়ে কোথায় কার্যকারিতার শেষ দিন লেখা নেই। যার জেরে এই ভ্যাক্সিনের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। টিএস দেওয়ের টুইট করার পরেই দ্রুত উত্তর দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। হর্ষবর্ধন বলেন, ছত্তিশগড় টিকার লক্ষ্যমাত্রা থেকে অনেকটা পিছিয়ে রয়েছে। তিনি দাবি করেন, কোভ্যাক্সিন সম্পূর্ণ নিরাপদ। রোগ প্রতিরোধে সক্ষম। এরপরেই টিকার বোতলে গায়ে সাটা কাগজের ছবি পোস্ট করেন। তিনি লেখেন, আপনার কার্যকারিতা শেষ হওয়ার দিন না থাকার অভিযোগ ভিত্তিহীন। টিকার বোতলের স্টিকারে সব লেখা রয়েছে।

তিনি বলেন, টিকা করণের লক্ষ্যমাত্রার দিক থেকে ছত্তিশগড় অনেকটা পিছিয়ে। ছত্তিশগড়ে মাত্র ৯.৫৫ শতাংশ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী করোনার টিকা পেয়েছেন। এই পরিসংখ্যান মোটেই আশাপ্রদ। হর্ষবর্ধন বলেন, আপনাদের উচিৎ আরও বেশি করে করোনার টিকার অধীনে স্বাস্থ্যকর্মীদের নিয়ে আসা আসা। হর্ষবর্ধনের এই টুইটের পাল্টা কোনও উত্তর ছত্তিশগঢ়ের তরফে পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here