kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘জীবনে প্রথম স্কুটি চালালাম। একদিনে অনেকটাই শিখে গিয়েছি। এবার মাঝে মধ্যে যে কোনও জায়গায় চলে যেতে পারব।‘ আজ নবান্ন থেকে স্কুটি চালিয়ে ফেরার পর এই মন্তব্য করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ি ছেড়ে ইলেকট্রিক স্কুটি চেপে নবান্নে যান। ফেরার পথে তিনি স্কুটি চেপে ফেরেন।

প্রথমে বেশ কিছুটা পথ তিনি নিজেই চালিয়ে আসেন। তারপর হুগলি সেতুর শেষ প্রান্ত থেকে স্কুটি চালাতে শুরু করেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। রবীন্দ্র সদনের কাছে এসে আবার স্কুটি চালাতে শুরু করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর বাড়ি ফিরে তিনি বলেন, আজ প্রথম স্কুটি চালালাম। একদিন অনেকটাই শিখে নিয়েছি। এবার মাঝেমধ্যে এখানে সেখানে চলে যেতে পারব।‘ এরপর তিনি জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্র সরকারকে একহাত নেন।

তাঁর রাজনৈতিক জীবনে তিনি যা আন্দোলন করেছেন, এমন আন্দোলন আর কোনও নেতা করেছেন কিনা তা নিয়ে তর্ক চলতে পারে। শুধু তাই নয়, সেই সব আন্দোলন করতে গিয়ে তিনি যে সব পদ্ধতি অবলম্বন করেন, তাও সচরাচর করতে দেখা যায় না অন্য রাজনীতিবিদদের ক্ষেত্রে। পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আজ অভিনব প্রতিবাদ করতে দেখা যায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। গতকালই তিনি ঠিক করেন আজ গাড়ি ছেড়ে তিনি ব্যাটারি চালিত স্কুটিতে চেপে নবান্নে যাবেন। সেইমতো গতকাল একটি স্কুটি কেনা হয়। আজ সকালে সেই স্কুটির পেছনে বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চালকের আসনে ছিলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। চেনা পথ ধরে অত্যন্ত ধীরগতিতে সেই স্কুটি পৌঁছয় নবান্নে।

​মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন, ফিরতি পথে তিনি স্কুটিতে করে ফিরবেন। তারপরও চমক অপেক্ষা করেছিল। সেই চমক অবশেষে সামনে আসে বিকেল পাঁচটা নাগাদ। দেখা যায়, নবান্ন থেকে বেরিয়ে স্কুটির চালকের আসনে বসে পড়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। অনভ্যস্ত হাতে ধীরগতিতে তিনি স্কুটি চালাতে থাকেন। পাশে সতর্ক থাকতে হয় তাঁর নিরাপত্তারক্ষীদের। মুখ্যমন্ত্রীর চেনা কনভয় এদিন ছিল না। তার বদলে নিরাপত্তারক্ষীরা পেছনে চারটে হলুদ ট্যাক্সিতে উঠে মুখ্যমন্ত্রীকে অনুসরণ করতে থাকেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here