kolkata news
Parul

 

ads

নিজস্ব প্রতিনিধি: নন্দীগ্রাম ভোট কারচুপি মামলার এজলাস বদলের দাবি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী। আজ আইনজীবী মারফত কলকাতা হাইকোর্টের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তিনি। ওই মামলায় মুখ্যমন্ত্রীর আইনজীবী সঞ্জয় বসু নন্দীগ্রাম মামলা বিচারপতি কৌশিক চন্দের এজলাস থেকে সরানোর আর্জি জানিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দলকে চিঠি দিয়েছেন। কারণ হিসাবে ওই চিঠিতে বিচারপতি চন্দের অতীত রাজনৈতিক যোগের কথা উল্লেখ করেছেন। চিঠিতে তিনি জানান, বিচারপতি চন্দ বিজেপির প্রাক্তন সদস্য। ফলে তাঁর নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই পারে। তাই মামলাটি অন্য বেঞ্চে সরানো হোক।

উল্লেখ্য, ভোট গণনায় কারচুপির অভিযোগ তুলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন। বিচারপতি চন্দের বেঞ্চে আজ মামলাটির শুনানির কথা ছিল। কিন্তু শুনানি হয়নি। এই ধরনের মামলায় অভিযোগকারীকে উপস্থিত থাকতে হয় বলে জানায় আদালত। আগামী বৃহস্পতিবার ওই একই বেঞ্চে মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে। তারই মধ্যে ওই মামলার বেঞ্চ বদলের দাবিতে শুক্রবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লেখেন সঞ্জয় বসু। যিনি নন্দীগ্রাম মামলায় মুখ্যমন্ত্রীর কৌঁসুলি।

হাইকোর্টের ক্ষেত্রে প্রধান বিচারপতিই ঠিক করেন কোন মামলা কোন বিচারপতির বেঞ্চে উঠবে। নন্দীগ্রাম মামলার ক্ষেত্রে তিনিই বিচারপতি চন্দকে দায়িত্ব দিয়েছেন। তাই মুখ্যমন্ত্রীর আইনজীবী শুক্রবার প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লিখেছেন। তবে এই আর্জি প্রধান বিচারপতি গ্রহণ করেন কিনা সেটাই দেখার। অন্যদিকে, আইনজীবীদের একাংশ মনে করছেন, এই ধরনের বিতর্কের সূত্রপাত হলে অনেক সময় বিচারপতি নিজেই মামলা থেকে সরে দাঁড়ান। এমন উদাহরণ অনেক রয়েছে। এ ক্ষেত্রেও প্রধান বিচারপতি যদি এই মামলা অন্য বেঞ্চে না পাঠান, তা হলে বিচারপতি চন্দের বিবেচনার ওপরেই এই মামলার ভবিষ্যৎ নির্ভর করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here