kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ পেতে হাসপাতালে উদ্বিগ্ন হয়ে অযথা ভিড় না করার জন্য রাজ্য সরকার পরামর্শ দিয়েছে। মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় আজ নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, যারা প্রথম ডোজের টিকা পেয়েছেন, তাদের নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেওয়া হবে। এর জন্য একটি নির্ঘণ্ট প্রস্তুত করা হচ্ছে। যারা প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন তারা যাতে নির্ধারিত সময়ে দ্বিতীয় দফার টিকা পান তা নিশ্চিত করতে সরকার উদ্যোগ নিচ্ছে। প্রথম ডোজের টিকা পাওয়ার সময়সীমা ভিত্তিতে দ্বিতীয় ডোজের টিকা পাওয়ার অগ্রাধিকার স্থির করা হবে।

যারা বেসরকারি হাসপাতাল থেকে প্রথম পর্যায়ে টিকা নিয়েছেন, তারাও নিকটবর্তী সরকারি হাসপাতাল থেকে টিকার দ্বিতীয় ডোজ পাবেন। কারা কোন সময় টিকা পাবেন সরকারের তরফে তা প্রাপকদের জানিয়ে দেওয়া হবে। তবে কেন্দ্রের কাছ থেকে নিয়মিত ও পর্যাপ্ত প্রতিষেধক পাওয়া গেলে তবেই রাজ্যে ১৮ থেকে ৪৫ বছর বয়সীদের টিকাকরণ শুরু হবে বলে মুখ্যসচিবের স্পষ্ট করে দিয়েছেন। টিকার নিয়মিত অপর্যাপ্ত সরবরাহের জন্য রাজ্য সরকারের তরফে নিয়মিত কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে বলে মুখ্য সচিব জানিয়েছেন।

অন্যদিকে, অতিমারির আবহে রাজ্যে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীর ঘাটতি মেটাতে রাজ্য সরকারকে উদ্যোগ নিয়েছিল তার ফলস্বরূপ দু’হাজারের বেশি শিক্ষানবিশ চিকিৎসক ইতিমধ্যে নিয়োগ করা হয়েছে। নার্স, প্যারামেডিকেল কর্মী-সহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের চুক্তির ভিত্তিতে নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। রেমেডিসিভির জাতীয় দুষ্প্রাপ্য ওষুধের জোগানও কিছুটা বেড়েছে বলে মুখ্যসচিব জানান। করোনা চিকিৎসা পরিকাঠামো বাড়াতে জেলায় জেলায় অক্সিজেন প্লান্ট তৈরি, যুদ্ধকালীন তৎপরতায় ভেন্টিলেটর ও অক্সিজেন কনসেনট্রেটর সংগ্রহ করা হচ্ছে। প্রতি পুরসভা ও পঞ্চায়েত সমিতি এলাকায় অন্তত একটি করে সরকারি অ্যাম্বুলেন্স ও শববাহী যান রাখার মতো উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী আজ শহরের বিভিন্ন পুজো কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তাদের জায়গাতে সেফহোম তৈরির ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে এই দিনের বৈঠকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here