ডেস্ক: ভারত এবং পাকিস্তান কোনও দেশকেই পরমাণু শক্তিধর দেশ বলে মনে করে না চিন। এমনকি ভিয়েতনামে উত্তর কোরিয়া কিম-জং-উন ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সন্মেলন হওয়ার পরও চিন উত্তর কোরিয়াকে পরমাণু শক্তিধর দেশের মর্যাদা দিতে রাজি নয়। চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র লু-কাং সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘চিন কখনই ভারত এবং পাকিস্তানকে পরমাণু শক্তিধর দেশ বলে স্বীকৃতি দেয়নি। এই বিষয়ে চিনের অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে।’

ভিয়েতনামের হ্যানয়ে উত্তর কোরিয়া ও আমেরিকা পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে দ্বিতীয় শীর্ষ সন্মেলনে উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে দুটি নিউক্লিয়ার প্রসেসিং প্ল্যান্ট বন্ধ করার প্রস্তাব নাকচ করে দেওয়ায় আলোচনা ব্যর্থ হয়। এই প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে চিন মুখপাত্র জানান, উত্তর কোরিয়াকেও চিন পরমাণুবিক শক্তিধর দেশের মর্যাদা দিতে রাজি নয়। উল্লেখ্য ৪৮ সদস্যের নিউক্লিয়ার সরবরাহকারী সংগঠনে (এনএসজি) ভারতের প্রবেশাধিকারের বিষয়টি চিন প্রথম থেকে বাধা দিয়ে আসছে। এই বাধা দেওয়ার কারণ হিসেবে তাঁদের যুক্তি পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ চুক্তিতে নয়া দিল্লি এখনও স্বাক্ষর করেনি।

ভারত এনএসজি-র সদস্যপদের আবেদন জানানোর পর পাকিস্তানও সদস্যপদের আবেদন জানায়। এই সময় চিন প্রস্তাব দেয় এনএসজি-র সদস্যপদ গ্রহণ করতে গেলে সদস্যভুক্ত দেশদের আগে পারমাণবিক নিরস্ত্রিকরণ চুক্তিতে সই করতে হবে। একমাত্র তবেই তারা নিউক্লিয়ার সরবরাহকারী সংগঠনের সদস্যপদ গ্রহণ করার জন্য আলোচনা শুরু করতে পারবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here