international news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা হানায় ইতিমধ্যেই গোটা বিশ্বে ত্রাহি ত্রাহি রব। গোটা বিশ্বের ১২৭ টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই মারণ ভাইরাস। প্রায় ১ লক্ষ ৩৫ হাজার মানুষ আক্রান্ত এই ভাইরাসে, মৃত প্রায় ৫ হাজার। এর মধ্যে এই ভাইরাসের জন্মভূমি চিনে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮০ হাজার ৮১৪। মারা গেছেন ৩ হাজার ১৮৫ জন। ভয়াবহ এই পরিস্থিতির মাঝেই এবার গোটা ঘটনার জন্য আমেরিকার দিকে আঙুল তুলল চিন। তাদের তরফে স্পষ্ট অভিযোগ করা হল, বিশ্ব জুড়ে ভয়াবহ ভাবে ছড়িয়ে পড়া এই করোনা ভাইরাস প্রথম উহানে ছড়িয়েছিল মার্কিন সেনা। সেখান থেকেই তা ছড়িয়ে পড়ে গোটা বিশ্বে। চিনের তরফে এহেন অভিযোগ তোলার পর রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

সম্প্রতি এক টুইটে চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান দাবি করেছেন, হতে পারে মার্কিন সেনাই চিনের উহানে এই করোনা মহামারী ছড়িয়েছে। এই ঘটনায় আমেরিকার উচিত নিজেদের দায় ও দায়িত্ব স্পষ্ট করা। আপনারা সঠিক তথ্য জানান। এবং বলুন আমেরিকাতে কতজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত। কোন হাসপাতালে তারা ভর্তি সেটাও জানান। তবে চিনের সে দাবির পাল্টা দিয়ে ইউএস সেন্ট্রাল ফোর্স ডিজিজ কন্ট্রোলের নির্দেশক রবার্ট রেডফিল্ড আগেই জানিয়েছিলেন, আমেরিকায় কিছু মানুষ ইনফ্লুয়েঞ্জার কারণে মারা গিয়েছেন। হতে পারে এরা চিনের করোনা ভাইরাসের দ্বারা সংক্রামিত।

এই প্রেক্ষিতে লিজিয়ান আরও জানান, সিডিসির ভুল এখন সামনে আসতে শুরু করেছে। এই ঘটনার জন্য তারা চিনকে দোষারোপ করতে পারে না। আমেরিকা আগে স্পষ্ট করুক এই ভাইরাসে প্রথম সেখানে কে আক্রান্ত হয়েছিল? এবং তাঁর বর্তমান অবস্থা কী? বিশ্বের সামনে স্পষ্ট করা হোক কতজন সেখানে এই ভাইরাসে আক্রান্ত। এবং কোথায় তাদের রাখা হয়েছে। পাশাপাশি তিনি এটাও জানাতে ছাড়েননি, করোনা সামলাতে আমেরিকার চেয়ে অনেক বেশি পারদর্শী চিন। আমেরিকা করোনা নিয়ে একাধিক তথ্য গোপন করছে বলেও দাবি তাঁর।

উল্লেখ্য, গোটা বিশ্বে বর্তমানে যেভাবে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস তাতে বেশ উদ্বিগ্ন হু। ইতিমধ্যেই এই ভাইরাসকে মহামারি ঘোষণা করেছে তারা। এহেন পরিস্থিতিতে এক মার্কিন সংবাদমাধ্যমের তরফে দাবি করা হয়েছিল, এই করোনা ভাইরাস নিয়ে গোপন কোনও পরীক্ষার জেরেই তা ছড়িয়ে পড়েছে চিনে। সোজা কথায় যাকে বলা যায় বুমেরাং। তবে আমেরিকার সে দাবি খারিজ করে পাল্টা তোপ দাগল চিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here