ডেস্ক: ভারত, পাকিস্তান নিয়ে কথা হবে অথচ তাতে চিনের নাম যুক্ত হবে না, তা বোধহয় সম্ভব নয়। বালাকোটে ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের পর চিনের তরফ থেকে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। চিনের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ভারত এবং পাকিস্তানের উচিৎ নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়ার মাধ্যমে চলার। নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর এলাকায় বজায় শান্তি বজায় রাখার চেষ্টা করুক। একই সঙ্গে দুই দেশ চেষ্টা করুক নিজেদের মধ্যে স্থিরতা বজায় রাখতে।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের পর এই প্রথম লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল (এলওসি) অতিক্রম করেছে ভারতীয় বায়ু সেনা। ১৯৭১-এর যুদ্ধে শেষবার নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করেছিল ভারতীয় যুদ্ধ বিমান। এমনকি কার্গিল যুদ্ধের সময়েও নিয়ন্ত্রণ রেখা অতিক্রম করেনি ভারতীয় বায়ু সেনা।

এদিন ভারতীয় বায়ুসেনা শুধুমাত্র নিয়ন্ত্রণ রেখা অতিক্রমই করেনি, গুঁড়িয়ে দিয়েছে বালাকোটে জইশদের প্রধান ট্রেনিং ক্যাম্প। সকাল থেকেই ভারতের এই পাল্টা হামলার খবর ছড়িয়ে সংবাদ শিরোনামে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ছড়িয়ে পড়ে ভারতের এই হামলার খবর। ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের তরফ থেকে সাংবাদিক সম্মেলন মারফত জানানো হয়েছে, গত দুই দশক ধরে পাকিস্তানের মাটিতে সক্রিয় জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গিরা।

উল্টো দিকে ভারতের জবাবি হামলার পর নড়েচড়ে বসেছে পাক প্রশাসন। সর্ব ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, জরুরি বৈঠক তলব করেছে পাক বিদেশ মন্ত্রক। বিকেলে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে শুরু হয় গুলি বর্ষণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here