ডেস্ক: সময় যত এগোচ্ছে দুর্নীতি মামলায় প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষের বিপদ বাড়ছে ততই। ভারতী ও তাঁর দেহরক্ষী সুজিত মণ্ডলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছিল আগেই। কিন্তু দুর্নীতি মামলায় বেপাত্তা এই দুই জনের বিরুদ্ধে এবার হুলিয়া জারি করে সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিল সিআইডি।

সংবাদপত্রে দেওয়া ওই বিজ্ঞপ্তিতে সিআইডির তরফে জানানো হয়েছে, যেখানেই থাকুক ভারতী ও তাঁর দেহরক্ষী সুজিত মণ্ডল যেন খুব শীঘ্রই সিআইডি অথবা আদালতের কাছে আত্মসমর্পণ করেন, অন্যথায় দেখা মাত্রই তাঁদের দুজনকে গ্রেফতার করা হবে। শুধু তাই নয়, বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ১১ অক্টোবরের মধ্যে ওই দুই জন আত্মসমর্পণ না করেন বা গ্রেফতার না হন, সেক্ষেত্রে তাঁদের স্থাবর অস্থাবর সমস্ত সম্পত্তি আদালতের নির্দেশে গ্রেফতার করা হবে। শুধু তাই নয়, ভারতী যাতে দ্রুত গ্রেফতার হয় তাঁর জন্য, বিভিন্ন রেল স্টেশন, বাসস্ট্যান্ড, থানা, সরকারি অফিস, বিমানবন্দর-সহ একাধিক স্থানে ভারতী ও সুজিতের ছবি সেঁটে দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে সিআইডি সূত্রে। তাঁদের গতিবিধি জানাতে পারলে বা ধরতে সাহায্য করলে পুরস্কৃত করা হবে। যে ব্যক্তি সাহায্য করবেন তাঁর নাম গোপন রাখা হবে বলে জানা গিয়েছে সিআইডির তরফে।

অন্যদিকে, এই দুর্নীতি মামলাতে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে ভারতীর স্বামী এমভি রাজুকে বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানির দিন আদালতে তাঁকে অন্য বন্দিদের সঙ্গে রাখার আর্জি জানান রাজু। তিনি বলেন, ‘আমি মানসিক অবসাদে ভুগছি। আত্মহত্যার ইচ্ছে চলে আসছে আমার মধ্যে। আমি যে কোনও সময় আত্মহত্যা করতে পারি। কারও সঙ্গে কথা বলতে পারছি না বলেই এই পরিস্থিতি হচ্ছে। আলাদা কোনও সেলে নয়। আমাকে অন্য বন্দিদের সঙ্গেই রাখা হোক।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here