international bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাজ্যসভায় পাশ হওয়ার পর বিলকে নিয়ে ইতিমধ্যেই উত্তাল হয়ে উঠেছে উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলি। জারি হয়েছে কার্ফু। আতঙ্কে রয়েছে দেশের সংখ্যালঘুরা। এরইমাঝে ক্যাব ইস্যুতে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার। ভারতে সংখ্যালঘুদের অধিকার যাতে সুরক্ষিত থাকে তার জন্য মোদী সরকারকে স্পষ্ট বার্তা দিয়েছে মার্কিন বিদেশ দফতর। এবার ক্যাব নিয়ে নরেন্দ্র মোদী সরকারের চিন্তা বাড়াল রাষ্ট্রপুঞ্জ। তাদের তরফ থেকে বলা হল, নাগরিকত্ব বিল মুসলিমদের প্রতি বৈষম্যমূলক।

পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশ থেকে হিন্দু, খ্রীষ্টান, জৈন, বৌদ্ধ, শিখ এবং পার্সি সম্প্রদায়ের মানুষদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়ার এই বিল এখন আইনে পরিণত হয়েছে। সংবিধানে উল্লেখিত ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হল ভারত, কিন্তু বিজেপির এই আইনে উল্লেখযোগ্যভাবে নেই মুসলিমরা। এই নিয়ে তীব্র ভাবে সরব হয়েছে দেশের বিরোধী দল। তাদের কথায়, ভারতের সংবিধানকে ক্ষুণ্ন করা হয়েছে এই আইনে। ধর্মনিরপেক্ষতাকে মানেনি বিজেপি সরকার। এই নিয়ে এবার চিন্তিত রাষ্ট্রপুঞ্জও। জানান হয়েছে, ‘ভারতের নাগরিকত্ব আইন নিয়ে আমরা বেশ চিন্তিত। এটি মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের প্রতি বৈষম্যমূলক।’ আরও জানান হয়, ‘এই নতুন আইন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত দ্বারা পরীক্ষিত। আশা করা হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানবিকতা আইনকে এই নতুন নাগরিকত্ব আইন মান্য করবে।’

প্রসঙ্গত, মোদী সরকারের এই বিলের প্রতিবাদে ইতিমধ্যেই সরব মাঋক কংগ্রেসের একটি অংশ। তাদের দাবি, এনআরসির পর দেশের মুসলিমদের নিশানা করতেই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ক্যাব এনেছে মোদী সরকার। যার জেরে চলতি সপ্তাহেই মোদী শাহদের বিরুদ্ধে সরব হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত কমিশন। তারা স্পষ্ট জানায় এই বিল পাশ হলে মোদী-শাহ সহ শীর্ষ স্থানীয় নেতাদের উপর নিষেধাজ্ঞা চাপানো উচিত। যদিও সে হুঁশিয়ারিকে খুব বিশেষ পাত্তা দেয়নি ভারত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here