নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: বরানগরে নাম না করে বিজেপির সমালোচনায় মুখর হলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বরানগরের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি বললেন, ‘কেন এত বছর পরে প্রমাণ দিয়ে বলতে হবে আমি আমার দেশকে ভালবাসি, কিছু বললেই আমি পাকিস্তানি আর উনি সাচ্চাস্তানি।’

সোমবার সন্ধ্যায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তর ২৪ পরগণার বরানগরের মহামিলন মঠ ওঙ্কার নাথ মন্দিরের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেন। মন্দির কমিটির আমন্ত্রণে এই মন্দিরের প্রতিষ্ঠাতা ভগবান দশরথি দেবের ১৩৫ তম জন্মদিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। এদিন এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে মুখ্যমন্ত্রী সর্বধর্ম সমন্বয়ের বার্তা দেন। এদিন মুখ্যমন্ত্রী নিজের বক্তব্যে বলেন, ‘ধর্ম কথাটি একটি বাক্যে ব্যাখ্যা করা যায় না। ধর্মের ব্যপ্তি অনেক বড়। ধর্ম যার যার নিজের বিশ্বাস। হিন্দুরা একভাবে ভগবানের নাম করে, মুসলিমরা ইসলাম ধর্মে তাদের মত করে আল্লাহকে স্মরন করে, খ্রিস্টানরা যীশুখ্রীষ্টকে, বুদ্ধিস্টরা ভগবান বুদ্ধকে এবং দেশবাসী সকলেই যার যার মত করে নিজের ধর্মে বিশ্বাস করে। তবে ভারতবর্ষে সব ধর্মই মিলে মিশে একাকার হয়ে যায়।’

 

এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় বেলুড় মঠের ভেতরে থাকা দরগার গল্প কথা ব্যাখ্যা করেন। তিনি বলেন, ‘ধর্ম মানে মানবিকতা। এটাই সত্য। কেন আমার পরিচয় পদবী দিয়ে হবে? আমরা সবাই মানুষ আর মানবিকতাই বড় ধর্ম। একেক সময় নিজেকে লজ্জিত মনে হয়, যখন কিছু বললেই কেউ বলে আমি পাকিস্তানি আর উনি সাচ্চাস্তানি। কেন এত বছর পর প্রমাণ দিয়ে বলতে হবে আমি দেশকে ভালোবাসি। কেন মন্দিরে ঢুকতে গেলে আটকে দিয়ে বলা হবে তুমি হিন্দু নও। এত বছর পরে আমাকে পদবী দিয়ে প্রমাণ করতে হবে আমি কি?” মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন “”এই গঙ্গা দিয়ে অনেক আবর্জনা বয়ে যায় তবু গঙ্গা পবিত্র, গঙ্গা আমাদের মা।”” ওঙ্কারনাথ মহামিলন মঠ মন্দিরে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য মন্দির কমিটিকে ধন্যবাদ জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here