পর্যটক বাড়াতে পুরীর আদলে দীঘায় জগন্নাথ মন্দির তৈরির ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

0
194

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জগন্নাথ মন্দিরে পুজো দেওয়ার জন্য আর ভিন রাজ্যে যেতে হবে না। সমুদ্রের অদূরে দীঘাতেই তৈরি হবে জগন্নাথ মন্দির। মঙ্গলবার দীঘায় আন্তর্জাতিক মানের কনভেনশন সেন্টারের উদ্বোধন করে এমনটাই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দীঘাকে কেন্দ্র করে ধর্মীয় পর্যটনকেন্দ্র গড়ে তুলতেই এই পদক্ষেপ জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ধর্মীয় স্থানকে কেন্দ্র করে পর্যটন বাড়ে। প্রতিটি পর্যটনকেন্দ্রেই কোনও না কোনও ধর্মীয় স্থান রয়েছে। পুরীতে মূলত সমুদ্র ও জগন্নাথ মন্দিরকে কেন্দ্র করে পর্যটনকেন্দ্র গড়ে উঠেছে। এবার পুরীর মত দীঘাতেও জগন্নাথ মন্দির গড়ে তোলা হবে।’ একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানান, পুরীর সৈকত সাজানো-গোছানো, বাঁধানো না থাকা সত্ত্বেও জগন্নাথ মন্দিরের টানে দেশ-বিদেশের বহু পর্যটক সেখানে যায়। দীঘায় জগন্নাথ মন্দির গড়ে উঠলে ওই মন্দিরকে কেন্দ্র করে পর্যটকের ভিড় আরও বাড়বে।

দীঘায় জগন্নাথ মন্দির হলেও কেবল ধর্মীয় পর্যটন কেন্দ্র হিসাবেই নয়, গোয়ার আদলেও দীঘা সৈকতকে তুলে ধরতে চান মুখ্যমন্ত্রী মমতা। তাই এদিন কনভেনশন সেন্টারের উদ্বোধনের পর দীঘায় মেরিনা সৈকত গড়ে তোলার কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘গোয়ার মডেলে গন্তব্য হয়ে উঠবে দীঘা। দীঘার দীর্ঘ ৭ কিলোমিটার সৈকতকে সাজিয়ে মেরিনা বিচ করে তোলা হবে।’ দীঘাকে গোয়া বানানোর স্বপ্ন মমতার নতুন নয়। রাজ্যে প্রথমবার ক্ষমতায় আসার পরই কলকাতাকে লন্ডন এবং দীঘাকে গোয়া হিসাবে গড়ে তোলার কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা। সেই ঘোষণার বাস্তবায়নের জন্য ইতিমধ্যে দীঘার খোলনলচে অনেকটাই পাল্টে দিয়েছেন তিনি। দীঘার পুরো সৈকত বাঁধিয়ে দিয়ে সেখানে বিশ্ববঙ্গ লোগো বসিয়ে, আলো-ঝরনার বাহার এমনকি ছোটদের খেলার জন্য পার্কও তৈরি হয়েছে। এবার পুরোদমে দীঘাকে গোয়া করে তুলতে মেরিনা বিচ গড়ে তোলার কথা ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা।

শুধু মেরিনা বিচ নয়, দীঘার সমুদ্রে ‘সি-প্লেন’ নামানোরও পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, ‘দীঘায় সি-প্লেন চালু হলে পর্যটক আরও বাড়বে।’ এছাড়া সৈকতের কাছাকাছি আন্তর্জাতিক মানের দুটি পার্কিং প্লাজা এবং দীঘা-কলকাতা বৈদ্যুতিন বাস চলাচলের ব্যবস্থাও শীঘ্র করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। তাঁর পুরোনো প্রকল্প, তাজপুর বন্দর তৈরির কাজও এবার কেন্দ্রের সাহায্য ছাড়াই শুরু হবে বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

সূত্রের খবর, রাজ্যের গণ্ডি ছাড়িয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এমনকি বিদেশেও বাংলার অন্যতম পর্যটনস্থল হিসাবে দীঘাকে তুলে ধরতে বদ্ধপরিকর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়া বিভিন্ন বাণিজ্যিক সংস্থাকে টেনে আনতেও মরিয়া তিনি। তাই দীঘায় এদিন যে কনভেনশন সেন্টারটির উদ্বোধন হল, সেটি আন্তর্জাতিক মানের করে গড়ে তোলা হয়েছে। এই কনভেনশন সেন্টারে বিশ্ববঙ্গ সম্মেলন করার পরিকল্পনা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর। এছাড়া বিভিন্ন সেমিনার, সিম্পোজিয়াম করা হবে বলেও রাজ্য সরকার সূত্রে খবর। তাই বিদেশি অতিথিদের জন্য দীঘার লারিকা হোটেলটি রাজ্য সরকার অধিগ্রহণ করে নতুনভাবে সাজিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here