নিজস্ব প্রতিবেদক, হাওড়া: গন্তব্যে যাওয়ার পথে গাড়ি থামিয়ে মাঝরাস্তায় নেমে ট্রাফিক সামলানো, নিজে দাঁড়িয়ে থেকে রোগী সহ অ্যাম্বুলেন্সকে আগে রাস্তা ছেড়ে দেওয়া বা দুর্ঘটনাগ্রস্ত এলাকায় দাঁড়িয়ে থেকে আহতদের হাসপাতালে পাঠানোর ভূমিকায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বহুবার অবতীর্ণ হতে দেখা গিয়েছে। এবার হাওড়ায় প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দিতে যাওয়ার পথে মাঝরাস্তায় গাড়ি থামিয়ে বস্তি পরিদর্শন করলেন তিনি। শুধু পরিদর্শন নয়, বস্তিবাসীদের ঘরে ঢুকে, তাদের অভাব-অভিযোগ, সমস্যার কথাও শোনেন।

জানা গিয়েছে, এদিন হাওড়া ময়দানের শরত্ সদনে প্রশাসনিক বৈঠক ছিল। সেই বৈঠকে যাওয়ার পথেই হঠাত্ করে ফরশোর রোডে গাড়ি থামিয়ে রাস্তার পাশে ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের রাউন্ড ট্যাঙ্ক লেনের একটি বস্তিতে ঢুকে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী। আচমকা দেবদূতের মত বস্তির মধ্যে মুখ্যমন্ত্রীকে দেখে আপ্লুত হয়ে পড়েন সেখানকার বাসিন্দারা। তাদের সঙ্গে নিয়েই মুখ্যমন্ত্রী পুরো বস্তিটি ঘুরে দেখেন। কয়েকজনের ঘরেও ঢোকেন এবং তাদের আবাসস্থল খতিয়ে দেখেন। তারপর বস্তিবাসীদের সুবিধা-অসুবিধা নিয়ে তাদের সঙ্গে কথাও বলেন মমতা। মুখ্যমন্ত্রীকে কাছে পেয়ে বস্তিবাসীরাও তাদের অভাব-অনুযোগ, কাউন্সিলরের প্রতি ক্ষোভ উগরে দেন। তারা জানান, কেবল ঘরদোর নয়, পানীয় জল থেকে শুরু করে নিকাশি এমনকি শৌচাগারের ব্যবস্থাও বেহাল। মুখ্যমন্ত্রী মনোযোগ সহকারে বস্তিবাসীদের সেই সমস্ত অভিযোগ শোনেন।

ফরশোর রোডের পাশের বস্তিটি পরিদর্শন করে মুখ্যমন্ত্রী সেখানে কোনও মন্তব্য করেননি। তবে শরত্ সদনে প্রশাসনিক বৈঠকে এসে স্থানীয় কাউন্সিলর ও বিধায়কদের উপর ক্ষোভ উগরে দেন। কাউন্সিলররা নিজের ওয়ার্ডে কাজ কেন দেখছেন না তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। রাউন্ড ট্যাঙ্ক লেনের বস্তিটিতে ৪০০টি পরিবারের বাস হলেও শৌচাগারের সংখ্যা মাত্র দুটি। কেন সেখানে আর শৌচাগার নির্মাণ হয়নি, সে বিষয়ে হাওড়া পুরনিগমের কমিশনার বিজয় কৃষ্ণকে প্রশ্ন করেন তিনি। একইসঙ্গে মধ্য হাওড়ার বিধায়ক অরূর রায়কেও ধমক দেন। তিনি কেন তাঁর এলাকা ঘুরে দেখেন না, এলাকাবাসীর অভাব-অভিযোগ শোনেন না এবং সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেন না- তা নিয়ে প্রশ্ন করেন। অবিলম্বে রাউন্ড ট্যাঙ্ক লেনের বস্তিটির উন্নয়নেরও নির্দেশ দেন মমতা। তবে কেবল ওটাই নয়, এখনও হাওড়ার বহু বস্তির অবস্থা যে শোচনীয় তা মুখ্যমন্ত্রীর অগোচর নয়। তাই সমস্ত বস্তিতে পাকা বাড়ি করার নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও এখনও পর্যন্ত কেন হয়নি তা নিয়ে হাওড়ার প্রশাসনিক আধিকারিকদের কাছে প্রশ্ন করেন মমতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here