নিজস্ব প্রতিবেদক, দুর্গাপুর: ‘অনেক কষ্ট করে বাবা মোবাইল কিনে দিয়েছিল। সেই মোবাইল আমার প্রান ছিল। সেটা রাখতেই পারলাম না, তাই আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছি।’ – এমনই এক সুইসাইড নোট উদ্ধার হল এক কলেজ ছাত্রীর কাছ থেকে। রবিবারই দ্বিতীয় বর্ষের ওই কলেজ ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে তার বাড়ী থেকেই। মৃত ছাত্রীর নাম নিবেদিতা বারুই(১৮)। বাড়ী পশ্চিম বর্ধমান জেলার দুর্গাপুর পুরনিগম এলাকার ৪১ নং ওয়ার্ডের সুকান্ত পল্লীতে। দুর্গাপুরের মাইকেল মধুসূধন কলেজের ইতিহাস (অনার্স)এর দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিল নিবেদিতা। মাত্র ৯ দিন আগে তার বাবা বিপুল বারুই ৮০০০ টাকা দিয়ে একটি মোবাইল কিনে দিয়েছিলেন। গত শনিবার জানালার পাশে মোবাইল চার্জ দেওয়ার সময় তা চুরি যায়।

গতকাল দুপুরে স্থানীয় কোকওভেন থানায় মোবাইল চুরির অভিযোগও জানায় নিবেদিতা। ফোন চুরি যাওয়া ইস্তকই মনমরা হয়ে ছিল সে। গত ৪/৫ দিন বাবা মা আত্মীয়ের বিয়ে উপলক্ষে ফারাক্কা গিয়েছিলেন। বাড়ীতে ভাই ও দিদা ছিল। গতকাল বিকেল থেকেই ঘরের দরজা দীর্ঘক্ষন বন্ধ থাকায় সন্দেহ হয় ভাই বাপি বারুইয়ের। পেছনের জানলা দিয়ে ঘরের মধ্যে উঁকি দিতেই চোখে পড়ে বোনের ঝুলন্ত দেহ। এরপর প্রতিবেশীদের ডেকে ঘরের টালির চাল সরিয়ে দেহ নামিয়ে মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাকে মৃত বলে ঘোষনা করে। এই ঘটনায় কার্যত হতভম্ব পরিবার। মেধাবী, ভদ্র, নম্র স্বভাবের নিবেদিতার এই অকাল মৃত্যুতে শোকের ছায়া এলাকায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here