মহানগর ওয়েবডেস্ক: সোমবার রাতে গালোয়ানে ভারত ও চিনের সেনাবাহিনীর হাতাহাতিতে শহিদ হন ২০ জন ভারতীয় সেনা। যদিও প্রথমে জানা গিয়েছিল তিনজন ভারতীয় জওয়ান প্রাণ হারিয়েছেন। এদের মধ্যে ছিলেন কর্নেল সন্তোষ বাবুও। সূত্রের খবর, সম্প্রতি হায়দরাবাদে ট্রান্সফার হওয়ার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু লকডাউনের ফলে তা পিছিয়ে যায়। রবিবারও বাড়ির সঙ্গে ফোনে কথা বলেছিলেন তিনি। মাকে বারণ করেছিলেন তাঁকে নিয়ে দুশ্চিন্তা না করতে।

এই প্রসঙ্গে সন্তোষ বাবুর বাবা প্রাক্তন ব্যাঙ্ককর্মী বি উপেন্দ্র জানান, ‘প্রথমে আমরা খবরটি বিশ্বাস করতে পারিনি। কিন্তু পরে সেনা সূত্রে আমাদের সত্যিটা জানানো হয়। আমার ছেলে অনেক কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেছে। আমার ইচ্ছে ছিল সেনায় যোগ দেওয়ার, পারিনি। আমার ইচ্ছেটা আমার ছেলেই পূরণ করে। সেই সময় অনেক আত্মীয়রাই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন।’

Col Santosh Babu, CO Of 16 Bihar Regiment Among Indian Army ...

১৬ বিহার রেজিমেন্টের কম্যান্ডিং অফিসার সন্তোষ বাবু রবিবার তাঁর মাকে ফোন করেছিলেন। সীমান্তে চিনের সঙ্গে সংঘাত নিয়েও চিন্তা প্রকাশ করেছিলেন। যদিও মাকে তিনি বারণ করেন তাঁকে নিয়ে দুশ্চিন্তা না করতে। ‘আমি ওকে সাবধানে থাকতে বলেছিলাম। যদিও ছেলেটা চলে গেল। কষ্ট হচ্ছে, তবুও আমার ছেলে দেশের জন্য আত্মবলিদান দিয়েছে, এটা ভেবে গর্বও হচ্ছে’, বলেন সন্তোষ বাবুর মা মঞ্জুলা দেবী।

২০০৪ সালে ভারতীয় সেনায় যোগ দেন শহিদ কর্নেল সন্তোষ বাবু। প্রথম পোস্টিং ছিল জম্মু ও কাশ্মীরেই। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও। ‘দেশের জন্য নিজের প্রাণ উৎসর্গ করেছেন সন্তোষ বাবু। তাঁর এই আত্মবলিদান কখনও বিফলে যাবে না’, বলেন মুখ্যমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here