ডেস্ক: আইনি জটিলতায় রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন নির্দিষ্ট দিনে হবে কিনা তা নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। এরই মাঝে লোকসভা ও বিধানসভা ভোট আলাদাভাবে না করে একসঙ্গে করার দাবীতে খসড়া রিপোর্ট জমা করল কেন্দ্রীয় আইন কমিশন। ফলে ২০১৯ সালে লোকসভা ভোট হবে কিন তা নিয়ে নতুন করে তৈরি হল সংশয়। সংবিধানের ৮৩ (২) এবং ১৭২ (১) অনুচ্ছেদে লোকসভা এবং বিধানসভার মেয়াদ সংক্রান্ত পরিবর্তনের নিরিখে তৈরি করা খসড়া রিপোর্ট নিয়ে নতুন করে কেন্দ্র ও রাজ্যগুলির মধ্যে সংঘাত শুরু হবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

বহু দিন ধরেই কেন্দ্রের ইচ্ছা ছিল আলাদা আলাদাভাবে নির্বাচনের ব্যয় কমানো ও অন্যান্য নানান ইস্যুকে সামনে রেখে একসঙ্গে করানো হোক লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচন। এতদিন ধরে কেন্দ্রের এই ইচ্ছা কানাঘুষো ভাবে শোনা গেলেও এবার সরাসরি তা খসড়া রিপোর্ট আকারে জমা করল কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রক। তবে কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকারের এই খসড়া সংসদে পেশ হলে তার বিরোধিতা করা হবে বলে আগেই জানিয়ে রেখেছে বিজেপি বিরোধী তৃণমূল, টিডিপি ও আপের মতো শক্তিশালী রাজনৈতিক সংগঠনগুলি। শুধু বিরোধী নয়, বিজেপি শাসিত বেশকিছু রাজ্যও এই বিষয়ে দ্বিমত পোষণ করেছে। ফলে বিলটি যে এত সহজে পাশ হবে না তা বেশ বুঝতে পারছে মোদী সরকার।

আইনপাশ যে এতটা সহজ হবে না তা বুঝেই নতুন পদক্ষেপ নিতে চলেছেন কেন্দ্র। কমিশন চাইছে এই খসড়া সংসদে পেশ হওয়ার আগে এই প্রস্তাব নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলের মতামত জেনে নিতে। সেক্ষেত্রে আইন পাশ করাতে সুবিধা হবে কেন্দ্রের। তবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা বিচার করে সংসদে এই আইন পাশ করানো গেলেও দেশের প্রতিটি বিধানসভাতেও পাশ করাতে হবে এই বিল তবেই সম্ভব হবে সংবিধান সংস্করণের কাজ। কাজটি যে মোটেও সহজ নয়, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে লোকসভা ও বিধানসভা ভোট একত্রে করাতে প্রবলভাবে ইচ্ছুক কেন্দ্র। তার জন্য সর্ব শক্তি দিয়ে ঝাঁপাতেও তৈরি তারা। তবে এই প্রচেষ্টা কতদূর সফলতা পাবে তা অবশ্য সময়ই বলবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here