ডেস্ক: ১৪ মে হবে পঞ্চায়েত নির্বাচন। তবে তার আগে মনোনয়ন জমা জেলার জেলায় হিংসার ব্যাপক চিত্র দেখেছে বাংলা। ভোটের আগেই রাজ্যের ২০ হাজার আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেয়েছে শাসকদল। যদিও বিরোধীরা অভিযোগ তুলেছে ভয় দেখিয়ে, শাসানি দিয়ে বিরোধীদের ভোট যুদ্ধে নামতেই দেয়নি শাসকদল। এদিকে আরও অভিযোগ যেটুকু জায়গায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে সেখানেও ভোট প্রচারে বিরোধীদের বাধা দিচ্ছে শাসকদল। বিরোধীদের অভিযোগের ভিত্তিতে এবার পদক্ষেপ নিল নির্বাচন কমিশন। প্রার্থীদের নিরাপত্তা দিতে এবার সব জেলার জেলাশাসক এবং পুলিশ সুপারদের নির্দেশ দিল নির্বাচন কমিশন।

রাজ্যে ভোটের নিরাপত্তা নিয়ে এখনও সেভাবে কোনও রফাসূত্র মেলেনি। রাজ্যের তরফে নিরাপত্তার কোনও খামতি থাকবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হলেও, তা মানতে নারাজ বিরোধীরা। এদিকে ভোটের আগেই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে শুরু করেছেন বিরোধীরা। বাড়ি বাড়ি নামে-বেনামে পৌছে যাচ্ছে হুমকি। বিরোধী প্রার্থীদের বাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠেছে শাসক দলের বিরুদ্ধে। এহেন পরিস্থিতিতে নতুন করে যাতে ফের সমস্যা তৈরি না হয় তার জন্য সচেষ্ট হল কমিশন।

রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট হবে ৬৬ শতাংশ আসনে। বাকি আসনগুলি ইতিমধ্যেই জয় পেয়েছে শাসক দল। যে জায়গাগুলিতে ভোট হবে সেখানে প্রার্থীদের যাতে কোনও রকম সমস্যা না হয় তার জন্য সমস্ত জেলার জেলা শাসক, পুলিশ সুপারদের কাছে পৌঁছে গিয়েছে কমিশনের কড়া নির্দেশ। সেই নির্দেশে স্পষ্ট বলা হয়েছে সমস্ত বিরোধী প্রার্থীদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে হবে প্রশাসনকে। সব প্রার্থীরা যাতে নির্ভয়ে ভোট প্রচারে নামতে পারে, এবং কোনও রকম অশান্তি যাতে না হয় তা দেখতে হবে প্রশাসনকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here