modi kolkata bengalinews

ডেস্ক: নির্বাচনী প্রচারে যেখানেই সভা করছেন সেখানেই তাঁর মুখ থেকে উঠে আসছে সেনার প্রসঙ্গ। কখনও আবার মুখ ফস্কে বলে ফেলছেন সেনার মুখের দিকে তাকিয়ে বিজেপিকে ভোট দিন। নির্বাচনী সভায় সেনাকে তুলে আনা বন্ধ করতে কমিশনের তরফে সতর্ক করা হয়েছিল আগেই। তবে সে সবকে বিশেষ পাত্তা না দিয়ে সমস্ত নির্বাচনী প্রচারেই ঢাক পেটানো হয়েছে এয়ারস্ট্রাইকের। বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, বার বার বলা সত্ত্বেও কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না কমিশন। তবে এবার সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, নির্বাচনী সভায় বায়ু সেনার এয়ারস্ট্রাইক ইস্যু তুলে আনার অভিযোগে এবার মোদীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চলেছে নির্বাচন কমিশন।

শুরু থেকেই বিরোধীদের অভিযোগ ছিল নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে ভোট প্রচারে সেনাকে নিয়ে প্রচার করছে বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ। কিন্তু ভোট প্রচারে সেনার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি হলেও কোনও রকম হেলদোল দেখা যায়নি বিজেপি নেতাদের ভাষণে। মোদীর বিরুদ্ধে কমিশনে বিরোধীদের অভিযোগের ভিত্তিতেই সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি সূত্রের খবর, এবার পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়েছে কমিশন। কমিশনের দাবি, ‘নির্বাচন শেষের জন্য অপেক্ষা নয়, বিশদে সমস্ত তথ্য প্রমাণ জোগাড় করে মোদীর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে খুব শীঘ্রই।’

সম্প্রতি, পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর পাকিস্তানের মাটিতে ঢুকে বালাকোটে জঙ্গি হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা। নির্বাচনী প্রচারে তাকেই হাতিয়ার করে সম্প্রতি মহারাষ্ট্রে এক জনসভায় মোদী বলেন, ‘আমি আমার দেশের প্রথম ভোটারদের কাছে আবেদন করব, তোমাদের প্রথম ভোট কি তাঁদের উদ্দেশ্যে দিতে পারবে যারা বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক করেছে? তোমাদের প্রথম ভোট কি তাঁদের উদ্দেশ্যে দিতে পারবে যারা পুলওয়ামায় শহিদ হয়েছেন? এর পাশাপাশি, অমিত শাহ যোগী আদিত্যনাথের মতো নেতৃত্বকে দেশের সেনাকে মোদীর সেনা বলে বিতর্কে জড়ান। সব মিলিয়ে কমিশনের কাছ থেকে এবার সেনাকে নিয়ে রাজনীতির শাস্তি পেতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here