নিজস্ব প্রতিবেদক, আসানসোল: ‘ফুটবে এবার পদ্মফুল বাংলা ছাড়ো তৃণমূল।’ বাবুল সুপ্রিয়র কণ্ঠে গাওয়া এই গানটির রেকর্ডিং-এর ভিডিও আপাতত ভাইরাল সোশ্যাল নেটওয়ার্কে। গানটি এখনও অফিসিয়ালি মুক্তি না পেলেও রেকর্ডিং-এর ভিডিও তুমুল জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কিন্তু এই গান গেয়েই এবার আইনি ফাঁসে জড়িয়ে পড়লেন আসানসোলের সাংসদ। গানের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে কুরুচিকর মন্তব্য করার অভিযোগ তুলে আসানসোলের দক্ষিণ থানায় দায়ের করা হয়েছে একটি মামলা। মামলাটি দায়ের করেছে বর্ধমান স্টুডেন্ট লাইব্রেরি কো-অর্ডিনেশন কমিটির সাধারণ সম্পাদক গৌরব গুপ্ত।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের উত্তাপ ভালোভাবেই টের পাচ্ছে বাংলা। রাজ্যে শান্তিপূর্ণ ভোটের স্বার্থে এসে পড়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। শুরু হয়েছে রুট মার্চও। পাল্লা দিয়ে প্রচারের ঝড় তুলতে অভিনব কায়দায় ‘এই তৃণমূল আর না’ গানটি বেঁধেছে গেরুয়ারা। গানটির সুর দিয়েছেন ও গেয়েছেন বাবুল নিজে। গানটি লিখেছেন অমিত চক্রবর্তী। কিন্তু বিজেপির এই ‘থিম সং’-এ ‘সিন্ডিকেট রাজ’, ‘চপ শিল্প’ ইত্যাদি শব্দের ব্যবহার করা হয়েছে বলে অভিযোগ। একই সং থানায় দায়ের করা অভিযোগে বলা হয়েছে, বিদায়ী সাংসদের গাওয়া এই গানে মিথ্যা অভিযোগ তোলা হয়েছে তৃণমূল এবং দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। এই গান তৃণমূল দল এবং দলের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্মানে আঘাত করেছে। গৌরব গুপ্তর দাবি, এই লিখিত অভিযোগকেই এফআইআর হিসেবে গণ্য করে গায়ক বাবুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

দুর্গাপুর নগর নিগমের পুরমাতা ধৃতি জালান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আসানসোল থেকে হেরে যাওয়া নিশ্চিত জেনে বাবুল সুপ্রিয় সামান্য সৌজন্যবোধ হারিয়ে ফেলেছেন। পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূল সভাপতি ভি শিবদাসন বলেন, ২৩মে থেকে বাবুল ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে চলে যাবে কারণ তিনি গোহারা হারবেন।

থানায় অভিযোগ দায়ের হওয়ার পরই অবশ্য পাল্টা দিয়েছেন বাবুলও। আসানসোলের সাংসদ জানান, ‘ওদের সঙ্গে পুলিশ রয়েছে। আমাদের পাশে জনগণ আছে। এই গানে প্রত্যেকটি লাইনই ব্যবহার করা হয়েছে সত্যতার উপর ভিত্তি করে। যা আগাগোড়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ বিরোধীদের। সত্য বড়ই নিষ্ঠুর। ওরা (তৃণমূল) যদি চিহ্নিত করতে পারে কোন সত্যি কথাগুলো ওদের আঘাত করছে, তবে আমরা সেগুলো মুছে দেওয়ার কথা ভাবতে পারি। কিন্তু সত্যিটাও প্রকাশ্যে আসবে এবং প্রমাণিত হবে।’

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here