ramdev_modi_priyanka

ডেস্ক: প্রিয়াঙ্কা গান্ধী প্রত্যক্ষ রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার পরবর্তী সময় থেকেই তীব্র কৌতূহলের সৃষ্টি হয়েছিল যে, বারাণসীতে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে প্রার্থী হবেন তিনি। দীর্ঘ সময় ধরে সেই জল্পনাই জিইয়ে রেখেছিল কংগ্রেস। বিভিন্ন সময় বারংবার জিজ্ঞাসা করা সত্ত্বেও প্রিয়াঙ্কা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। অবশেষে গতকাল সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বারাণসীতে কংগ্রেস প্রার্থী ঘোষণা করেছে দল; মোদীর বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন অজয় রাই। প্রিয়াঙ্কার প্রার্থী না হওয়া নিয়ে এবার কংগ্রেসকে একহাত নিলেন যোগগুরু রামদেব। তাঁর বক্তব্য, কংগ্রেস মোদীকে ভয় পেয়েছে!

রামদেবের বক্তব্য,

বারাণসীতে কংগ্রেস মোদীর বিরুদ্ধে কখনই প্রিয়াঙ্কাকে প্রার্থী করত না, কারণ নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে প্রিয়াঙ্কা কোনওদিনই জিতবেন না তা কংগ্রেস ভালোমতোই জানে। রাজনৈতিক কেরিয়ারের শুরুতেই এইভাবে প্রিয়াঙ্কার হার দেখতে চায় না কংগ্রেস। সেই ভয়েতেই বারাণসীতে প্রার্থী হননি প্রিয়াঙ্কা, দাবি রামদেবের।

এই প্রেক্ষিতে মোদীর হয়ে সওয়াল করে তিনি আরও বলেন, ‘চৌকিদার’ চোর নয়, একেবারে পিওর।

উল্লেখ্য, রবিবার ইস্তক একাধিকবার বারাণসীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার বিষয়ে মুখ খুলতে শোনা গিয়েছিল প্রিয়াঙ্কাকে। ‘দল চাইলেই তিনি তৈরি’ বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক। কিন্তু এদিন অজয় রাইকেই পুনরায় বারাণসী কেন্দ্রে প্রার্থী করে সেই আশায় জল ঢেলে দিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী।

তবে অভিজ্ঞ রাজনৈতিক বিশ্লেষক মহল জানাচ্ছে, এই কেন্দ্রে প্রিয়াঙ্কা লড়ার জল্পনা তৈরি হলেও সেই সম্ভাবনা কখনই ছিল না। কারণ, নেহেরু থেকে ইন্দিরা জমানা পর্যন্ত প্রতিপক্ষের হেভিওয়েট নেতাকে জোর করে হারানোর প্রথা কংগ্রেসের সংস্কৃতিতে নেই। একবার অবশ্য রাজীব গান্ধী কেবল ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। ১৯৮৪ সালে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমবতী নন্দন বহুগুনার বিরুদ্ধে এলাহাবাদ কেন্দ্র থেকে অমিতাভ বচ্চনকে প্রার্থী করেছিলেন। সেবার অমিতাভ দু লক্ষের ব্যবধানের কাছাকাছি ভোটে জিতেছিলেন। কিন্তু তারপর আর সে পথ ধরে হাঁটেননি রাজীব। রাহুলও তাই নিজের বোনকে মোদীর বিরুদ্ধে না লড়িয়ে দিয়ে অন্য কোনও আসন থেকেই সাংসদ হিসেবে দেখতে চাইবেন। তাই প্রিয়াঙ্কাকে এই আসন থেকে প্রার্থী করা হল না বলে মত অনেকের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here