kalyan abdul
Highlights

  • জোড়াফুল শিবিরে যোগ দিয়েই আব্দুল মান্নানের ভাই বলেন, অনেকদিন থেকেই তৃণমূলে আসার ইচ্ছে ছিল
  • তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দোপাধ্যায় বলেন, এতে প্রমাণ হলো কংগ্রেস কোনও কাজ করে না
  • বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান বলেন, দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতেই ভাই তৃণমূলে যোগ দিয়েছে

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাজ্যের বিধানসভায় তিনি নিজে বিরোধী দলনেতা। অথচ তাঁর ভাই-ই কিনা আশ্রয় নিলেন ঘাসফুল শিবিরের! কংগ্রেস নেতা তথা বিধানসভার বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নানের ভাই তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন বলে খবর। সংবাদ সূত্রে। রবিবার তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে তিনি শাসকদলে যোগ দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

রবিবার শ্রীরামপুরের তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দোপাধ্যায়ের বাড়ি গিয়ে তৃনমূলে যোগ দেওয়ার আবেদন করেন মুজিবর ও তাঁর স্ত্রী রেজমি খাতুন। সম্পর্কে আব্দুল মান্নানের ভাই মুজিব।

এরপরেই কল্যাণ বন্দোপাধ্যায় তাঁদের তৃণমূলে স্বাগত জানিয়ে বলেন, মমতা বন্দোপাধ্যায় আর তৃণমূল ছাড়া পশ্চিমবঙ্গের উন্নয়ন সম্ভব নয়। এই কথা অনেকেই বুঝছেন। এদিন মুজিবর ও রেজিনা উন্নয়নের কথা ভেবেই তৃণমূলে যোগদান করেন। পাশাপাশি কল্যাণ বলেন, প্রায় রোজই কেউ না কেউ যোগ দিয়ে দলকে সব সময়ই শক্তিশালী করেন।

এদিন তৃণমূল সাংসদ বলেন, রাজ্যের বিরোধী দলনেতার ভাই যখন জোড়াফুল শিবিরে যোগ দিলেন তখন এটাই প্রমাণ হয় যে, কংগ্রেস কিছু করে না। কংগ্রেস সিপিএম-এর হাত ধরায় আরও অনেক কংগ্রেস নেতা-কর্মী তৃণমূলে যোগ দেবে দাবি করে তিনি বলেন, এই তো শুরু। তৃণমূলে যোগ দিয়ে মুজিবর ও রেজমি জানান, ‘তৃণমূলে থেকে কাজ করার ইচ্ছা ছিল অনেকদিন থেকেই। সেই কথাই কল্যাণ দার কাছে জানিয়েছিলাম।’

মুজিব আরও বলেন, দাদা আব্দুল মান্নান কংগ্রেস নেতা এবং রাজ্যের বিরোধী দলনেতা তাতে কোনো অসুবিধা হবে না। কারণ, অনেক পরিবার আছে যেখানে সদস্যরা বিভিন্ন দল করেন। রাজনীতিটা ব্যক্তিগত।

চাঁপদানীর বিধায়ক ও বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নান বলেন, মুজিবর আমার ভাই ঠিকই। কিন্তু ও আমার সঙ্গে থাকে না। শ্রীরামপুরে ফ্ল্যাট নিয়ে থাকে। কোনোদিন কংগ্রেস করেনি ভাইয়েরা। ‘এখন ওরা যদি দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতে চায় আমি করব?’ প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here