ধরি মাছ, না ছুঁই পানি! গর্জে ওঠা তো দূর, বাবুলের হেনস্থার ঘটনায় অবাক ‘রবিনহুড’

0
933
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গতকাল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যে তোলপাড় রাজ্য। কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী তথা রাজ্যের সাংসদকে হেনস্থার করার ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় বাবুলকে উদ্ধার করতে যাওয়ার পর থেকে রাজ্যের রাজনৈতিক পরিস্থিতি আরও জটিল হয়েছে। তৃণমূল সরকার ও রাজভবনের মধ্যে লেগে গিয়েছে ‘বাকবিতণ্ডা’। অন্যদিকে, বামফ্রন্ট এবং প্রদেশ কংগ্রেসও এই গোটা ঘটনার নিন্দা করে একহাতে বিজেপিকে কাঠগড়ায় তুলেছে, অপরদিকে রাজ্য সরকারকেও বিঁধেছে। কিন্তু এই বিষয় নিয়ে এবারে ‘গর্জন’ করতে দেখা গেল না কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে। একেবারে ধরি মাছ, না ছুঁই পানি ঢঙে বক্তব্য রাখলেন তিনি।

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিয়ে অধীর বলেন,

‘আমার খুব খারাপ লেগেছে গতকালের ঘটনায়। একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ওপর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা এই ধরনের আচরণ কেন করল তা ভেবে আমি অবাক হয়েছি। শুধু বাংলার নয়, গোটা ভারতের অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয় হল যাদবপুর। ওখানের পড়ুয়ারা অনেক বেশি গুণী এবং পারদর্শি। তাদের মতো পড়ুয়ারা এইভাবে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যিনি আদতে একজন ভাল লোক, তাঁর ওপর এইভাবে হামলা চালিয়েছে তা ভেবে আমি সত্যিই হতবাক।’

বাবুলের প্রতি সহানুভূতি দেখানোর পরেই অবশ্য তাঁর আচরণের সমালোচনা করলেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। বললেন, ‘বাবুলেরও উচিত ছিল পড়ুয়াদের সঙ্গে সংবেদনশীল হিসেবে পেশ হওয়া। তিনিও পারতেন ধীরেসুস্থে, শান্তভাবে তাদের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে।’ পাশাপাশি তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, কেন বাবুল সুপ্রিয় সেখানে গিয়েছিলেন বা পড়ুয়ারা হঠাৎ এই পরিস্থিতি কেন তৈরি করল, সে বিষয় তিনি কিছুই জানেন না। তবে আইনশৃঙ্খলার বিষয়ে তিনি তৃণমূল সরকারকে কাঠগড়ায় তুলতে ছাড়েননি। বলেন, রাজ্যে যে আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি ঘটেছে তা আবারও প্রমাণিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here