ডেস্ক: কংগ্রেস সভাপতি হিসাবে প্রথমবার পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে ভাষণ দিলেন রাহুল গান্ধি। কংগ্রেসের জন্য অধিবেশনটির গুরুত্ব অনেকটাই বেশি পেতে চলেছে কারণ দীর্ঘ ৪ বছর পর এই অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভাপতি হিসাবে বক্তব্য রাখতে উঠে সবার প্রথম দলের বরিষ্ঠ নেতাদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনকে লক্ষ্যে নিয়ে এই অধিবেশন দলের মধ্যে বিশেষ ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করছেন কংগ্রেসের শীর্ষস্থানীয় নেতারা। এদিনের অধবেশনে প্রথম সারিতেই উপস্থিত ছিলেন সভাপতি রাহুল সহ প্রাক্তন সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধি।

উদ্বোধনী ভাষণেই কেন্দ্রীয় সরকার তথা বিজেপির উপর আক্রমণ শানান রাহুল। কংগ্রেস সভাপতি বলেন, দেশে হিংসা ছড়ানো হচ্ছে, দেশকে ভাগাভাগি করার চেষ্টা হচ্ছে। ভারতের এক ব্যক্তিকে অন্য ব্যক্তির সঙ্গে লড়াই করতে ইন্ধন জোগান দেওয়া হচ্ছে। এই অবস্থায় দেশকে জুড়ে রাখাই কংগ্রেসের হাতের চিহ্নের এজেন্ডা বলে জানান রাহুল।

বিজেপিকে আক্রমণ করে রাহুল আরও বলেন, ‘আমরা নিজেদের বরিষ্ঠ নেতাদের ভুলে যাই না। আমাদের দলে সোনিয়া গান্ধি ও মনমোহন সিংয়ের মতো নেতারা দলের জন্য লড়াই করেন।’ এদিনের পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে রাহুল নিজের উদ্দেশ্য স্পষ্ট করে জানান, বরিষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে যুবনেতাদের মেলবন্ধন করাই লক্ষ্য তাঁর। নরেন্দ্র মোদী সরকারকে আক্রমণের সুরে কটাক্ষ করে এদিন রাহুল আরও বলেন, মানুষ এটাই বুঝে উঠতে পারছেন না যে তারা রোজগার কবে পাবেন। কৃষকেরা নিজেদের অধিকার কবে ফিরএ পারেন।

এদিনের পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে কংগ্রেস সভাপতি দাবি করেন, কেবল কংগ্রেসই এই অবস্থায় দেশকে সঠিক পথ দেখাতে পারে। কংগ্রেস ও বাকি বিরোধী দলের মধ্যে পার্থক্য দেখাতে গিয়ে রাহুল বলেন, বাকিরা ক্রোধের আশ্রয় নেয়। কংগ্রেস ভালবাসা প্রয়োগ করতে ভালবাসে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here