ডেস্ক: বিচারপতি লোয়ার মৃত্যু মামলায় আদালতের রায়ে নিরাশ হওয়ার পরই প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর বিরুদ্ধে ‘ইমপিচমেন্ট’ প্রস্তাব নিয়ে আসতে উঠেপড়ে লেগেছে বিরোধীরা। এমন ঘটনার নজির খুবই কম মেলে যখন দেশের বিচার ব্যবস্থার মেরুদণ্ড যিনি, তাঁর উপরই প্রশ্ন চিহ্ন ওঠা শুরু করে। মাসখানেক আগে সুপ্রিম আদালতের বাকি বিচারপতিদের বিদ্রোহ ঘোষণার পর এদিন ফের উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডুর সঙ্গে দেখা করে ‘ইমপিচমেন্ট’ পেশ করতে যান কংগ্রেস নেতা-মন্ত্রীরা।

কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদের সঙ্গে বিরোধীদের বৈঠকের পর ৬০ জন সাংসদের সমর্থন স্বরূপ স্বাক্ষর নিয়ে উপরাষ্ট্রপতির কাছে ‘ইমপিচমেন্ট’ প্রস্তাব জমা দেয় বিরোধীরা। সোরাবুদ্দিন এনকাউন্টার মামলার বিচারপতি লোয়ার মৃত্যু মামলায় অভিযুক্তদের ক্লিনচিট দেওয়ার পরই ‘ইমপিচমেন্ট’ প্রস্তাব আনার সিদ্ধান্ত নেন বিরোধীরা। এদিন গুলাম নবি আজাদের সঙ্গে উপরাষ্ট্রপতির কাছে এই প্রস্তাব জমা দিতে যান অভিষেক মনু সিংভি, কপিল সিব্বল প্রমুখ।

কংগ্রেসের আনা এই অনাস্থা প্রস্তাবে সমর্থন জানিয়েছে সিপিআই, সিপিএম, এনসিপি, বিএসপি, মুসলিম লীগ এবং সমাজবাদী পার্টি। কিন্তু উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, আরজেডি এবং টিএমসি নিজেদের মুখে কুলুপ এঁটে রেখেছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here