spitting on ruti

মহানগর ডেস্ক: সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ার একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা গিয়েছে, একটি ধাবার রুটি তৈরির সময় সেখানে থুথু মাখিয়ে দিচ্ছে। এই ভিডিয়ো লীনা ধনখড় নামের এক চিকিৎসক প্রকাশ করেন। ভিডিয়োটি প্রকাশের পরেই তা ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে যায়।

হরিয়ানার গুরুগ্রামে সেক্টর ১২-র ওই ধাবা মালিক ও রাঁধুনীর বিরুদ্ধে পুলিশ এফআইআর দায়ের করেছে। তবে ওই ধাবার মালিকের নাম বা ধাবার নাম পুলিশের তরফে প্রকাশ করা হয়নি। চিকিৎসক লীনা ধনখড়ও তাঁর টুইটে ধাবার নাম প্রকাশ করেননি। তবে ওই দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আদালতো তোলা হলে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পুলিশি জেরায় তাঁরা এই ধরণের কাণ্ড কেন করেছেন, তার কোনও উত্তর দেননি।  

জানা গিয়েছে, গত দুই মাসে এই ধরনের একাধিক অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এর আগে রুটিতে থুথু মিশিয়ে দেওয়ার জন্য গাজিয়াবাদে মহসিন নামের এক ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেফতার করে। জেরার মুখে মহসিন জানিয়েছে, বহু বছর ধরেই তিনি রুটি তৈরির সময় থুথু মিশিয়ে দিচ্ছেন।

প্রায় একই অভিযোগে মার্চে দিল্লির এক যুবককে পুলিশ গ্রেফতার করে। ওই যুবকের রুটিতে থুথু মিশেয় দেওয়ার ভিডিয়ো ইন্টারনেটে ভাইরাল হওয়ার। ভাইরাল হওয়ার ভিডিয়োর ভিত্তিতে দিল্লি পুলিশ ওই যুবককে গ্রেফতার করে। একই কারণে দিল্লির সেলিমপুরে একটি হোটেল থেকে দুই যুবককে গ্রেফতার করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here