news bengali kolkata

নিসর্গ নির্যাস: করোনা মোকাবিলায় চাই সচেতনতা। তবেই অতিমারণ এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব। সচেতনতা প্রচার করতে গিয়ে প্রশাসন জোর দিতে চাইছে আঞ্চলিক ভাষা ও সংস্কৃতিতে। তাতে ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন সরকারি কর্মচারী ও আধিকারিকরা।

অন্য কোনও ভাষায় প্রচার করা হলেও তাতে প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের তেমন সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। এদিকে করোনা মোকাবিলায় জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছিল আগেই। দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। সকলকেই থাকতে বলা হয়েছে ঘরবন্দি হয়ে। খুব প্রয়োজন ছাড়া বেরোতে না বলা হয়েছে। তাই সচেতনতা প্রচারে আঞ্চলিক ভাষা ও সংস্কৃতিতে জোর দিয়েছে প্রশাসন। আর তাতে সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বেশ ভালোই।

বাঁকুড়া সহ জঙ্গলমহলের বিভিন্ন জায়গায় অলচিকি ভাষায় দেওয়া হয়েছে পোস্টার। আবার ঝাড়গ্রাম জেলার রোহিনীতে ঢ্যাঁড়া পিটিয়ে প্রচার করা হচ্ছে সুবর্ণ রৈখিক ভাষায়। সচেতন করে বলা হয়েছে কী করা উচিত বা অনুচিত। আর তাতেই পাওয়া গিয়েছে ভালো রকমের সাড়া।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, স্থানীয় ভাষা ও সংস্কৃতিতে জোর দিয়ে প্রচার করলে তার ফল ভালো হচ্ছে। মানুষ আগ্রহ নিয়ে সেই সমস্ত পোস্টার পড়ছে ও ঘোষণা শুনছে। প্রশাসনের উদ্যোগে খুশি স্থানীয়রাও। দাবি উঠছে শুধু করোনা মোকাবিলাতেই নয় পরবর্তী সময়ে সমস্ত ক্ষেত্রেই জোর দেওয়া হোক আঞ্চলিক ভাষা ও সংস্কৃতিতে।

এখনও বিভিন্ন জায়গায় রয়েছে সচেতনতার অভাব। নরমে গরমে লকডাউন মানতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সাধারণ মানুষকে। কোভিড ১৯ ঠেকাতে কোনও ফাঁক রাখতে চাইছে না প্রশাসন। আর সেই জন্যেই নেওয়া হল এই পদক্ষেপ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here