মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনার ভয়াবহতা বিশ্বের পাশাপাশি ক্রমশ বেড়ে চলেছে ভারতেও। একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে অমানবিকতার টুকরো ছবিও। সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের মৃতদেহ হুক দিয়ে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়ার ছবি ভাইরাল হওয়ার পর, এবারের ছবিটি অন্ধ্রপ্রদেশের। সেখানে এক করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ শশান ঘাটে নিয়ে যাওয়ার জন্য ব্যবহার করা হল জেসিবি। অমানবিক সেই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব। সরকারের এহেন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে সরব হয়ে উঠেছে বিরোধী দল।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীকুলুম জেলার উদয়াপুরম এলাকার বাসিন্দা পুরসভার প্রাক্তন এক কর্মীর সম্প্রতি মৃত্যু হয় করোনা আক্রান্ত হয়ে। জানা গিয়েছে, বাড়ি বাড়ি সরকারি করোনা সমীক্ষা করতে গিয়েই মারণ এই রোগে আক্রান্ত হন তিনি। এরপর নিজের বাড়িতেই মৃত্যু হয় তার। ওই বৃদ্ধের মৃত্যুর পর আতঙ্ক ছড়ায় এলাকায়। যে ভিডিও এদিন ভাইরাল হয়েছে সেখানে দেখা গিয়েছে জেসিবির সামনের অংশে রাখা রয়েছে মৃতদেহ। পিপিই কিট পরে কয়েকজন বসে রয়েছেন জেসিবিতে। মৃতদেহ সৎকারের জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে শ্মশান ঘাটে। ভিডিওটি নজরে এসেছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর। মুখ্যমন্ত্রী দপ্তরের তরফে বিষয়টিকে অমানবিক আখ্যা দিয়ে বরখাস্ত করা হয়েছে দুই সরকারি আধিকারিককে। এ প্রসঙ্গে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডি জানান, এই ঘটনা চরম অমানবিক অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। রাজ্যের সমস্ত আধিকারিকদের স্পষ্ট নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এই ধরনের ঘটনায় কী কী করনীয়।

তবে পরিস্থিতি শান্ত হচ্ছে না কোনওভাবে। এই ঘটনার জেরে রাজ্য সরকারের তুমুল সমালোচনা করে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা টিডিপি নেতা চন্দ্রবাবু নাইডু বলেন, কোনও করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ প্লাস্টিকে মুড়ে জেসিবি তে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা চরম দুঃখজনক। যে কোন ব্যক্তি মৃত্যুর পর উপযুক্ত সম্মানের দাবিদার। এই ধরনের অমানবিক ঘটনা ঘটানোর জন্য যখন সরকারের লজ্জা হওয়া উচিত। প্রসঙ্গত, এর আগেও অন্ধ্রপ্রদেশে এই ধরনের একটি ঘটনা ঘটেছিল যেখানে করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ ট্রাক্টরে চড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here