national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ক্রমশ বাড়ছে সংখ্যাটা। সরকারি তথ্য অনুযায়ী রবিবার দেশে করোনা আক্রান্তের সখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৩ জন। সংখ্যার সঙ্গে সঙ্গে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আতঙ্ক। এরই মাঝে সরকারের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়ল দিল্লির এক করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে ঘিরে। জানা গিয়েছে, ৪৬ বছর বয়সী করোনা আক্রান্ত দিল্লির এক ব্যক্তি ইতালি থেকে ভারতে ফিরে ৮১৩ জন মানুষের সংস্পর্শে এসেছিলেন। এই তথ্য প্রকাশ্যে আসার পরই চিন্তিত সরকার।

জানা গিয়েছে, কাজের সূত্রে ইউরোপের ৪ দেশ ঘুরে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ভারতে এসেছিলেন ওই ব্যক্তি। যদিও সেই সময়ে তিনি জানতেন না করোনা ভাইরাস ঢুকেছে তাঁর শরীরেও। তাঁর শরীর থেকে করোনা ছড়িয়েছিল ওই ব্যক্তির মায়ের শরীরে। যার জেরে গত শুক্রবার মৃত্যুর হয় ওই ব্যক্তির মায়ের। তড়িঘড়ি ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর জানা গেল ভারতে আসার পর কাজের সূত্রেই অন্তত ৮১৩ জন মানুষের সংস্পর্শে এসেছিলেন তিনি। তবে বিদেশে থাকা কালীন তাঁর সঙ্গী হিসাবে আরও যে ৬ জন ছিলেন তাদের শরীরে করোনা ভাইরাসের কোনও লক্ষণ দেখা যায়নি। তবে ভারতে ফেরার পর ওই ব্যক্তির এতজনের মানুষের সংস্পর্শে আসার বিষয়টি চিন্তার বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে, কড়া সতর্কতা, পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকারের একের পর এক উদ্যোগ, তবে কোনও কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না মারণ করোনা ভাইরাসকে। শনিবার পর্যন্ত যে সংখ্যাটা ছিল ৮৪, রবিবার সকাল পর্যন্ত শেষ পাওয়া খবরে সেই সংখ্যাটাই দাঁড়িয়েছে ৯৩। যদিও অন্য একটি সূত্রের দাবি, সংখ্যাটা ১০০ ছুঁয়ে ফেলেছে। করোনা যাতে আরও বেশি সংখ্যক মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে না পড়ে তার জন্য কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে রাজ্যগুলি। দেশের ৫ টি রাজ্যে স্কুল কলেজ বন্ধ রাখার পাশাপাশি বন্ধ করা হয়েছে সিনেমাহল ও জিম। যে কোনও রকম জমায়েতের উপর জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। পশ্চিমবঙ্গেও সোমবার থেকে সমস্ত স্কুল কলেজ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নবান্ন। বন্ধ রয়েছে সায়েন্স সিটি ও জাদু ঘরের মতো দর্শনীয় স্থানগুলি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here